এক চেয়ারম্যান পেটালেন আরেক চেয়ারম্যানকে!

॥ জাহিদুর রহমান তারিক ॥

ঝিনাইদহে এক চেয়ারম্যানকে আরেক চেয়ারম্যান পিটিয়ে জখম করেছে এ নিয়ে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আহত নাসির উদ্দিন মালিতা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক।

রোববার সকালে গান্না ইউনিয়নের কুঠিদুর্গাপুর মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন মালিতা ছাড়াও তার আরো চার সমর্থককে পিটিয়ে আহত করে। আহতদের মধ্যে ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিন ও ফারুক হোসেনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চেয়ারম্যান নাসির উদ্দেীন জানান, রোববার কুঠিদুর্গাপুর মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল।

এতে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দীতা করেন আব্দার খাঁ ও বজলুর রহমান। নির্বাচনকালীন সময়ে ঘটনাস্থলে দলবল নিয়ে উপস্থিত হন, পাশবর্তী কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আশরাফুল আলম। মাদ্রাসায় উপস্থিত হয়ে তিনি নির্বাচন হয়ে গেছে বলে ঘোষনা দেন।

আহত ইউপি মেম্বার ফারুক হােসেন জানান, এসময় গান্না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন মালিতা প্রতিবাদ করলে কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফুল আলমের নির্দেশে আলমগীরের নেতৃত্বে উপস্থিত কর্মীদের হাতুড়ি, রামদা, লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান ও ২জন মেম্বরসহ ৫ জন আহত হয়।

ইউনিয়ন পর্যায়ের দুই আওয়ামীলীগ নেতা ও চেয়ারম্যানের ঘুষোঘুষির খবর ছড়িয়ে পড়লে ইউনিয়নব্যাপী উত্তেজনা দেখা দেয়। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ বলেন, ঘটনাটি শুনেছি।

এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিলে তদন্ত স্বাপেক্ষে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আশরাফুল আলম জানান, আমাদের মধ্যে একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিলো। দুপুরে বসে তার সমাধান হয়েছে।