বাংলাদেশে বাঙ্গালীরাই আদিবাসী – বিচারপতি খাদেমুল ইসলাম চৌধুরী

॥ প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥

পার্বত্য চট্টগ্রাম বাংলাদেশের বাইরের কোন ভূখন্ড নয়।বাংলাদেশের উন্নায়নে সরকারের যেমন প্রদক্ষেপ আছে,ঠিক তেমনি পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নের জন্য সরকারের বিশেষ প্রদক্ষেপ দরকার। বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়নের জন্য বিশেষ বাজেট দরকার,পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি বিষয়ে বিচারপতি খাদিমুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ কোন ফেডারেল রাষ্ট্র নয় যে,দুই অঞ্ছলের জন্য দুই রকম আইন থাকবে। এই জন্যই এ চুক্তি পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য কোন শান্তি বয়ে আনতে পারেনি।তাই শান্তির বার্তা আনতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।পাহাড়ে আদিবাসি বলে কিছু নাই,বাংলাদেশে বাঙ্গালীরাই আদিবাসি।

আজ রাজধানী ঢাকার তোপখানা রোডের বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ পরিষদের কনফারেন্স রুমে “পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি অন্তরায়ও এবং আমাদের করনীয় শীর্ষক” গোলটেবিল আলোচনা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে সাবেক বিচারপতি “পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান জনাব খাদেমুল ইসলাম চৌধুরী এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন,চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল এবং পরিবেশ বিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক কাজী মো: বরকত আলী।“পার্বত্য নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূইঁয়ার সভাপতিত্ত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, নয়াদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, লে:কর্নেল(অব:)এস এম আইয়ুব, তৃণমুল বি এন পির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো:আক্কাছ আলী খান,“পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি মো:ফয়েজ উদ্দিন আহমেদ,সিনিয়র যুগ্নমহা সচিব শেখ আহমেদ রাজু,সাংগঠনিক সম্পাদক মো:আবদুল হামিদ রানা,ড.মো:মোকছেদ আলম মঞ্জু,ড.মো:মোলেছুর রহমান,পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ এর সিনিয়র সহ সভাপতি মো:তৌহিদুর রহমাপার্বত্য বাংগালী ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো:সাহাদাৎ ফরাজি সাকিব। উপস্থিত ছিলেন,পার্বত্য নাগরিক পরিষদের দপ্তর সম্পাদক মো:খলিলুর রহমান,পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের ঢাকা মহানগর কমিটির সেক্রেটারী এডভোকেট সারোয়ার, এডভোকেট মো:আনোয়ার হোসেন, এডভোকেট আবদুল আহাদ, এয়াকুব,ইউনুছ, ইব্রাহিম অপি, রোবেল, রিয়াদ প্রমূখ।

সভাপতির বক্তব্যে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান, ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভুইয়া বরেন,পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চুক্তির মাধ্যমে যদিও অস্র সমর্পণ করেছিল তথাপি অবৈধ অস্রের ঝন ঝনানী এখন চলছে,তাই সরকারকে এখনই অবৈধ অস্রউদ্ধারে তৎপর হতে হবে।সন্তুলারমা কখনও পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল নাগরিকের প্রতিনিধিত্ত্ব করেনা তিনি শুধু ২৪ শতাংশ চাকমাদের প্রতিনিধিত্ত্ব করে,তাই অবিলম্বে পার্বত্য জেলা পরিষদ ও আঞ্ছলিক পরিষদে দ্রুত নির্বাচন দিয়ে বাঙ্গালীদের প্রতিনিধিত্ত্ব অর্ন্তভ’ক্ত করার ও দাবী জানান।