লংগদু সেনা জোন কর্তৃক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে খাবার ও ফ্রি চিকিৎসাসেবা প্রদান

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

জেলার প্রত্যন্ত দুর্গম বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের খাগড়াছড়ি রিজিয়নের অধীনস্থ লংগদু সেনা জোন কর্তৃক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে খাবার ও ফ্রি চিকিৎসাসেবা এবং ওষধ প্রদান করা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল হতে বাঘাইছড়ি উপজেলার বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে লংগদু জোন কমান্ডারের প্রতিনিধিরা শুকনো খাবার,বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান এবং ওষধ বিতরণ করেন।
লংগদু সেনা জোন সূত্রে জানান,গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তারা বাঘাইছড়ি উপজেলার দূরছড়ি বাজার,খেদারমারা,মাহিল্যার নিম্ম অঞ্চল টানা বর্ষনে অনাবৃষ্টিপাতে তলিয়ে যায়। ওই সব এলাকার আশ্রয়কেন্দ্র গুলোতে কয়েকশ’ পাহাড়ি বাঙালি নারী পুরুষও শিশুদের মধ্যে এ মানবিক সহায়তা প্রদান করেন। সূত্রে আরো জানান, প্লাবিত বন্যার পানি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আশ্রয় কেন্দ্রে যত লোক আছে সবাইকে লংগদু সেনা জোন মানবিক সহায়তা দিয়ে যাবেন। লংগদু সেনা জোনের মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন আশাফার নেতৃত্বে পানি বন্দি মানুষের ঘরে ঘলে গিয়ে ফ্রি চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হচ্ছে।
লংগদু সেনা জোন মানবিক সহায়তা প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন খেদারমারা ইউপি চেয়ারম্যান স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, হেডম্যান কার্ব্বারী ও জনপ্রতিনিধিরাসহ সেনাবাহিনীর সদস্যরা।
লংগদু সেনা জোন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আবদুল আলীম চৌধুরী এসডিপি,পিএসসি বলেন, দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে বাংলঅদেশ সেনাবাহিনী মানবতার কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। খাগড়াছড়ি রিজিয়নের অধীনে লংগদু সেনা জোন অসহায় গরিব পাহাড়ি বাঙালিদের মধ্যে পাশে রয়েছে আগামীতে ও অসহায় মানুষের পাশে থাকবে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পাহাড়ে সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায়ে সর্বদা কাজ করছে। তিনি আরো বলেন, লংগদু জোন কর্তৃক এসব আশ্রয়িতদের মধ্যে খাবার,চিকিৎসাসেবা এবং ফ্রি ওষধ সহায়তা দিয়ে যাবেন।
এদিকে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানাগেছে,গতকাল থেকে বন্যার পানি কমতে শুরু করছে। তবে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের বাড়িঘরে ফিরতে আরো এক সপ্তাহ লাগতে পারে।