লংগদুতে চাউলের দাবীতে কাপ্তাই হ্রদের জেলেদের মানববন্ধন, প্রয়োজনে হরতাল পালনের হুমকি

॥ ওমর ফারুক মুছা ॥

কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরা বন্ধের সময় দুঃস্থ ও প্রকৃত জেলে পরিবারের মাঝে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর কর্তৃক মৎস্য ভিজিএফ এর ৪০ কেজি চালের বিপরীতে ১০কেজি চাল বরাদ্দের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে লংগদু উপজেলার মৎস্যজীবিরা।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশের অন্যান্য এলাকায় মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধের সময় মৎস্য জেলেদের জন্য মাসে ৪০ কেজি হারে ভিজিএফ চাল প্রদান করা হয়। একই মন্ত্রনালয়ে কাপ্তাই হ্রদের মৎস্য জীবিদের জন্য কেন মাসে ১০কেজি করে চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। গত ২০১৬ সালে এই জেলেদের জন্য মাসে ২০কেজি বরাদ্ধ করেছিলো। ২০১৭ সালে দূর্যোগের কারণে কোন বরাদ্ধই দেয়া হয়নি। ফলে তিন মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধের সময় জেলে পরিবারগুলো নিদারুন দুঃখ কষ্ট করে চলতে হয়েছে। কেন একই দেশে জেলেদের জন্য দুই ধরনের নিয়ম করা হবে।
কাপ্তাই হ্রদের জেলে পরিবারদের কষ্ট লাঘবের জন্য ১০ কেজির পরিবর্তে মাসে অন্তত ৩০কেজি ভিজিএফ চাল বরাদ্দ প্রদানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেলে পরিবারের সদস্যরা।
২১জুন (বৃহষ্পতিবার) লংগদু উপজেলা পরিষদের সামনে উপজেলা মৎস্যজীবি পরিবারবর্গদের উদ্যোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করা হয়। লংগদু একতা মৎস্য জীবি সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি মোঃ ইমাম হোসেন এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবি লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন, জেলা যুবলীগের সদস্য মোঃ নজরুল ইসলাম, একতা মৎস্য জীবি সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন।
এক ঘন্টার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে মৎস্য জীবি নেতৃবৃন্দরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে প্রধান মন্ত্রী বরাবর স্মারকলীপি দিয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহ্দী ইমাম স্মারকলিপিটি গ্রহন করেন।