ব্রেকিং নিউজ

হেডম্যান নিয়োগ, বদলী ও পদায়ন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবীতে রাঙ্গামাটিতে মানববন্ধন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পার্বত্য চট্টগ্রামের হেডম্যানদের (মৌজা প্রধান) নিয়োগ স্থায়ী ও রাজস্বভূক্ত বদলী, পদায়ন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবীতে আজ রোববার সকালে রাঙ্গামাটিতে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে হেডম্যান এসোসিয়েশন।
রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসন কার্যালয় চত্বরে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে তিন পার্বত্য জেলা থেকে হেডম্যানরা অংশ গ্রহন করেন। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্যে রাখেন হেডম্যান এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি চিংকিউ রোয়াজা, সাধারন সম্পাদক কেরল চাকমা ও সহ-সভাপতি থোয়াই অং মারমা।

মানববন্ধনে বক্তারা ২০১৭ সালে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে গৃহীত সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রম শাসনবিধি ও পার্বত্য চুক্তির আলোকে প্রণীত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখানো হয়েছে।

শাসনবিধি অনুযায়ী পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত নেতৃত্ব সার্কেল চিফ,হেড ম্যান, কার্বারীগণের নিয়োগ সংক্রান্ত এই আইনের আলোকে পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু জেলা প্রশাসক সম্মেলন ২০১৭-এ জেলা প্রশাসকগণ হেডম্যান নিয়োগ, স্থায়ী ও রাজস্বভূক্ত করে বদলী ও পদায়ন সংক্রান্ত গ্রহণ করে। যা পার্বত্য চুক্তির আলোকে প্রণীত পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ আইন ১৯৯৮, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮-এ স্বীকৃত আইনকে লংঘন করা হয়েছে এবং ১৯০০ সালের শাসনবিধির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ন নয়। অথচ এ ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহনের পূর্বে হেডম্যানসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সাথে কোন ধরনের আলোচনা করা হয়নি।

মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারলিপি প্রদান করা হয়। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রামের হেডম্যানদের (মৌজা প্রধান) নিয়োগ স্থায়ী ও রাজস্বভূক্ত বদলী, পদায়ন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বাতিল করা না হলে কঠোর কর্মসূচির হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন তারা।

উল্লেখ্য, রাঙ্গামাটি জেলায় ১শ ৫৯ জন, বান্দরবানে ৯৫ জন এবং খাগড়াছড়িতে ১শ ২১ জন, হেডম্যান বা মৌজা প্রধান রয়েছেন। হেডম্যানরা সরকারি ভূমি উন্নয়ন কর, খাজনা, জুমকরসহ ভূমি ব্যবস্থাপনার কাজে জেলা প্রশাসক এবং সার্কেল চিফ বা রাজাদের সহযোগিতা করে থাকেন। বংশ পরম্পরায় সার্কেল চিফের সুপারিশক্রমে জেলা প্রশাসকেরা হেডম্যান নিয়োগ দিয়ে থাকেন।