প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত ভাইয়ের লাশ নিতে এসে অপহৃত ছোট ভাই

॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ির আলুটিলায় প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত ইউপিডিএফ কর্মী জ্ঞানেন্দু চাকমা লাশ নিতে এসে তারই ছোট ভাই কালায়ন চাকমা (২২)কে অপহরণের ঘটনা ঘটে। শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে খাগড়াছড়ির আধুনিক সদর হাসপাতাল থেকে এ অপহরণের করলে অপহরণকারীরা বেধড়ক মারধর করে ছেড়ে দেয় বলে জানা যায়।

ইউপিডিএফের সংগঠন অংগ্য মারমা এ ঘটনার জন্য জেএসএস সংস্কার (এমএন লারমা) গ্রুপকে দায়ী করেছে। ইউপিডিএফের অভিযোগ তাদেও কর্মী জ্ঞানেন্দু চাকমা লাশ নিতে এসে তারই ছোট ভাই কালায়ন চাকমা (২২)কে অপহরণের ঘটনায় জেএসএস সংস্কারকে দায়ী করে ইউপিডিএফের পক্ষ থেকে অভিযোগ করেন ১৫/২০ জন সংস্কারপন্থী গুলিতে জ্ঞানেন্দু চাকমা লাশ নিতে আসা কালায়ন চাকমাকে জোর পূর্বক অস্ত্রের মূখে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে বেধড়ক ভাবে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

সংগঠনটি আরো জানান, বৃহস্পতিবার জ্ঞানেন্দু চাকমাকে গুলি করে হত্যার পর থেকে তার লাশ মহালছড়িতে না নিতে তার পরিবারের সদস্যদের হুমকি দিয়ে আসছে হত্যাকারীরা। তবে অভিযোগের বিষয় অস্বীকার করেছে জেএসএস সংস্কার (এমএন লারমা) গ্রুপ।

প্রসঙ্গত: বৃহস্পতিবার বিকেলে খাগড়াছড়ি আলুটিলায় পর্যটন এলাকায় গুলি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জ্ঞানেন্দু চাকমাকে হত্যা করা হয়। সে মহালছড়ি উপজেলার কিয়াংঘাট ইউনিয়নের যাদুগানালা গ্রামের মৃতকালি মোহন চাকমার ছেলে। পাহাড়ে উপজাতীয় সংগঠনের দ্বন্দ্ব ও আধিপত্য বিস্তারের লড়ায়ে ধারাবাহিক ভাবে হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে চলেছে।