ব্রেকিং নিউজ

যেখানে সন্ত্রাসীদের কর্মকান্ড থাকবে সেখানে সেনাবাহিনী থাকবে – লেঃ কর্ণেল আঃ আলীম

॥ লংগদু প্রতিনিধি ॥

‘‘গোষ্ঠি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে দেশ গড়ি; সম্প্রীতির লংগদু জোন’’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে লংগদু সেনা জোনের উদ্যোগে ‘সম্প্রীতির সন্মেলন-২০১৮’ এতে জোনের বিদায়ী জোন কমান্ডার (২বেঙ্গল অধিনায়ক) লেঃ কর্ণেল আঃ আলীম চৌধুরী এসজিপি, পিএসসি বলেছেন, এলাকায় সম্প্রীতি ও সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকবে সকল জাতী গোষ্ঠি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের দ্রুত উন্নয়ন ঘটবে।তার পরিবর্তে এখানে নিজেদের মধ্যে চলছে হিংসা হানাহানি ও ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত। অবৈধ অস্ত্রধারীরা নিরীহ জনসাধারণকে জিম্মি করে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য খুন,ঘুম ও অপহরণ করে এলাকার পরিবেশ অশান্ত করে তুলছে। অবৈধ অস্ত্রধারীরা কখনও পার পাবে না। সরকারের নির্দেশ অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী সে যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে।
১৬ জুলাই, লংগদু উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে সেনা জোন কর্তৃক আয়োজিত ‘সম্প্রীতির সন্মেলনে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে জোনের জোন কমান্ডার(২বেঙ্গল অধিনায়ক) লেঃ কর্ণেল আঃ আলীম চৌধুরী এসব কথা বলেছেন।
লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন এতে সভাপতিত্ব করেন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জোনের নবাগত বেঙ্গল ২১বীর এর উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ ইমরান হাসান। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাইনীমুখ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার, রাঙামাটি জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ জানে আলম, খেদারমারা ইউপি চেয়ারম্যান সন্তোষ কুমার চাকমা, আটারকছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মঙ্গল কান্তি চাকমা, কালাপাকুজ্জা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা মিয়া।
বক্তব্য রাখেন, লংগদু সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজিব ত্রিপুরা, লংগদু থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মহিউল, লংগদু প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোঃ এখলাস মিঞা খান, তিনটিলা বনবিহারের ভান্তে জ্ঞানময় চাকমা ও মিলন কার্বারী চাকমা।
প্রধান অতিথি জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল আঃ আলীম চৌধুরী আরো বলেন, সম্প্রতিকালে লংগদু, বাঘাইছড়ি ও নানিয়ারছরে যে হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে সেই ঘটনাকারী তারা কারা এবং কারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে যাচ্ছে আপনারা সকলে অবশ্যই তাদেরকে চিনেন।
তিনি বলেন, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা যেমন অপরাধী তেমনী তাদের আশ্রয় ও পশ্রয়দাতারও সমান অপরাধী।আপনারা সকলে ঐক্যবদ্ধ হলে সন্ত্রাসীরা অবশ্যই ভয় পেয়ে পালাবে। যেখানেই সন্ত্রাসী ও তাদের কর্মকান্ড থাকবে সেখানে সেনাবাহিনী থাকবে। আপনাদের ভয়ের কোন কারণ নাই। ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার আগেই সন্ত্রাসীদের কর্মকান্ড সম্পর্কে জানালে অবশ্যই জোনের সহযোগীতা পাবেন। আর আমার জন্য দোয়া করবেন।
তিনি আরো বলেন, আপনাদের সাথে থেকে এলাকার শিক্ষা ও সার্বিক উন্নয়ন এবং আইন শৃঙ্খলা স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য কাজ করেছি। আরো অনেক কাজ করার ইচ্ছা থাকলেও সরকারের আদেশে অন্যস্থানে চলে যেতে হচ্ছে। আপরা সবাই ভালো থাকবেন এবং সম্প্রীতির বন্ধনে থাকবেন।
শেষে জোন কমান্ডার আঃ আলীম চৌধুরীকে কালাপাকুজ্জা সেনা মৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটি ও ইপি চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা ক্রেস্ট ও উপহার দেওয়া হয়।