পাহাড়ে এইচএসসিতে পাশের হার : রাঙামাটিতে ৪৫.৯৯, খাগড়াছড়ি ৩৬.৫১, বান্দরবানে ৬২.৩১ শতাংশ

॥ আলমগীর মানিক ॥

বৃহস্পতিবার সারাদেশে একযোগে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রকাশিত ফলাফলে এবছর পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে ৪৫ দশমিক ৯৯, খাগড়াছড়িতে ৩৬ দশমিক ৫১শতাংশ, এবং বান্দরবানে ৬২ দশমিক ৩১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাশ করেছে।

এবছর পার্বত্য জেলাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ ফল হয়েছে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে। সেখানে পাশের হার ৩৬ দশমিক ৫১ শতাংশ। এই জেলাটিতে গত বছর ছিলো-৫১ দশমিক ৭০ শতাংশ।

এছাড়াও এবছর পাশের হার কিছুটা এগিয়ে এনেছে পার্বত্য জেলা বান্দরবান। এই জেলাটিতে এবার ৬২ দশমিক ৩১ শতাংশ পাশের হার, যা গত বছর ছিলো ৬১ দশমিক ৬৪ শতাংশ। অপরদিকে রাঙামাটি জেলায়ও গতবারের তুলনায় পাশের হার সামান্য বেড়ে ৪৯ দশমিক ৮৯ শতাংশ হয়েছে। গত বছর পাশের হার ছিলো ৪৭ দশমিক ১৪ শতাংশ।

এদিকে, এবার রাঙামাটি সরকারী কলেজ হতে চলতি ২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ১৪১৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ- ৫ পেয়েছে মাত্র ১ জন পরাক্ষার্থী। রাঙামাটির ঐতিহ্যবাহি এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এবছর পাশের চাইতে ফেলের সংখ্যা বেশী। এ বছর পাশ করেছ ৬৫০ জন অপরদিকে ফেল করেছে ৭৬৯ জন।

অপরদিকে পার্বত্য জেলা বান্দরবারে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ জন এবং খাগড়াছড়িতে পেয়েছে ৪ জন। এবার সার্বিক চিত্রে চট্টগ্রাম বোর্ডে এবছর পাসের হার ৬২ দশমিক ৭৩ শতাংশ, যা আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের মধ্যে পঞ্চম।

এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে মোট এক হাজার ৬১৩ জন শিক্ষার্থী। এবছর, সারাদেশে সার্বিকভাবে এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের হার কমলেও চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে গতবারের চেয়ে বেড়েছে। এবছর ছাত্রীদের পাসের হার বাড়লেও কমেছে ছাত্রদের ক্ষেত্রে। তবে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্রের সংখ্যা বেশি।

এবার পাসের হার ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ, যা গত বারের চেয়ে ২ শতাংশ পয়েন্ট কম। বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান ফল ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, গত বছরের তুলনায় পাসের হার এবং জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে।  চট্টগ্রাম বোর্ডে এবার শতভাগ পাস করেছে এমন কলেজের সংখ্যা এবার পাঁচটি। আর পাসের হার শূন্য এমন কলেজ একটি। বোর্ডের অধীনে ২৫৩টি কলেজের পরীক্ষার্থীরা এবার ১০০টি কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেয়।