বাড়িতে বসেই সবধরনের সরকারী সুবিধা ভোগ করছেন পানছড়ির প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মিজান

॥ পানছড়ি প্রতিনিধি ॥

চট্রগ্রামের বাড়িতে বসে ২ বছর যাবৎ সরকারের সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছেন খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ঢাক্তার মিজানুর রহমান।
জানা যায়, ২০১৬ সালের ২ জুন পানছড়িতে যোগদান করেন প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মিজানুর রহমান। যোগদানের পর দীর্ঘ দিন অনুপস্থিত থাকার পর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রির্টারনিং কর্মকর্তা হিসাবে নিয়োগ দেওয়া ডাঃ মিজানুর রহমানকে। বেশ কিছু দিন দায়িত্ব পালন না করে ছিলেন নিজ বাড়িতে। নির্বাচনের কয়েক দিন পূর্বে পানছড়ি এসে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করেন। নির্বাচন শেষে আবারো চলে যান নিজ বাড়িতে। এরপর প্রতি মাসের সমন্বয় সভায় এসে উপস্থিত থেকে সরকারী বেতন, ভাতাসহ সকল প্রকার সম্মানী ব্যাংক থেকে উত্তলন করেন এবং একই দিন প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রে স্বাক্ষর করে চলে যান।
কার্যলয়ের ফিল্ড সুপারভাইজার দন্তু চাকমা বলেন, স্যার মাসে একবার আসে এতে আমাদের কাজের সমস্যা হয়। অফিস সহকারী পূর্ণ শুভা চাকমা বলেন, আমাদের কাজ কর্মে কোন অসুবিধা হয় না, অফিসের কাজ আসলে আমরা ফোন করি, ফোন করলে উনি আসেন।
এ বিষয়ে ডাক্তার মিজানুর রহমান এর মুঠো ফোনে দু-বার কল করলেও তিনি রিসিভ করেন নি।
খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও প্রাণী সম্পদ বিভাগের আহবায়ক খগেশ্বর ত্রিপুরা বলেন, আমি বিদেশ যাচ্ছি এসেই এ বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের সাথে কথা বলবো।