বাঁশখালীতে কাজের মেয়েকে ধর্ষন চেষ্টা, গৃহকর্তা আটক

॥ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ॥

বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের পশ্চিম পুঁইছড়ি ছৈয়দ্যার বাপের বাড়ীতে গৃহকর্তা কর্তৃক কাজের মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গৃহকর্তা ওই এলাকার মৃত আবদুল মতলবের পুত্র মোঃ নেজাম উদ্দিন (৩৮)কে আটক করেছে থানা পুলিশ। গতকাল (৮ আগস্ট) বুধবার সকালে নির্যাতিত ওই কাজের মেয়ের মা মোছাম্মৎ মাসুকা বেগম বাদী হয়ে ওই গৃহকর্তাকে আসামী করে বাঁশখালী থানায় এজাহার দায়ের করেছে। এদিকে কাজের মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। আটক ও ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বাঁশখালী থানার ওসি সালাহউদ্দিন হিরা জানান, ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে গৃহকর্তা নেজাম উদ্দীনকে আটক করা হয়েছে। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। জানা গেছে, বাঁশখালী উপজেলার পশ্চিম পুঁইছড়ি গ্রামের সরলিয়া বাজারের দক্ষিণ পার্শ্বে ছৈয়দ্যা বাপের বাড়ীর গৃহকর্তা নেজাম উদ্দীনের বাড়ীতে ছনুয়া ইউনিয়নের ৬০নং পাড়ার লাল মিয়ার ১১ বছর বয়সী কন্যা শিশু দীর্ঘদিন যাবৎ গৃহ পরিচিকার কাজে নিয়োজিত ছিল। গত ৭ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুরে বাড়ীতে কেউ না থাকায় একা পেয়ে ওই কাজের মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায় সে। নির্যাতিত গৃহ পরিচারিকার আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে থানা পুলিশের এসআই হায়দার আলী দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই গৃহকর্তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। দীর্ঘ তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে পুলিশ গৃহকর্তা নেজামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/২০০৩) এর ৯(৪)(খ) ধারায় নিয়মিত মামলা রুজু করেন। উল্লেখ্য, নরপিশাচ নেজাম উদ্দিনের ইপিুর্বেও নিজ ভাবীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছিল বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়। তাছাড়া এই মামলা বর্তমানে আদালতে চলমান রয়েছে।