৪ গ্রামবাসীকে অপহরণের ঘটনায় ফের উত্তপ্ত খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়ক

॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

আবারো উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়ক। এ ঘটনায় সড়কে গাছ ফেলে সড়ক অবরোধ করে রাস্তায় আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী। অপহৃতরা হচ্ছে, সিন্ধুরায় ত্রিপুরা (৩৫), তকায় ত্রিপুরা (৩০), মশা ত্রিপুরা (৩২) ও সুকেন্দ্র ত্রিপুরা (৩৮)।

খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কে বন্ধ দোকানপাট খোলার দাবীতে জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপি দিয়ে ফেরার পথে শহরের মহাজনপাড়া থেকে গাড়ী থেকে অপহরণের অভিযোগ পানছড়ি সড়ক অবরোধ করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় স্থানীয় উপজাতীয়রা। পানছড়ি-খাগড়াছড়ি সড়কের পেরাছড়া ও গিরিফুল ও শীব মন্দির এলাকায় স্থানীয়রা সড়ককে গাছ ফেলে আগুন দিয়ে রাস্তা অবরোধ করে অপহৃতদের মুক্তির দাবীতে দুপুর ২টা থেকে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সন্ধ্যা ৭টায়ও যানবাহন চলাচল শুরু হয়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানায়, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করে ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার জনসাধারণ, দোকানদার ও খুদে ব্যাবসায়ীরা। স্মারকলিপি দিয়ে গাড়ী যোগে বাড়ি ফেরার পথে ৪ গ্রামবাসীকে অপহরণের অভিযোগ এনে দ্রুত তাদের মুক্তির দাবীতে সড়কে নেমে আসে স্থানীয় উপজাতীয় এলাকাবাসী। অপহরণের ঘটনার জন্য স্থানীয়রা জেএসএস ও নব্য সৃষ্ট ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে দায়ী করছে। তবে তারা এ অভিযোগ স্বীকার করেছে।

অপরদিকে এ ঘটনায় খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ) ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা। সোমবার বিকেলে স্বনির্ভর বাজার ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয় সামনে থেকে বের হয়ে নারাঙহিয়া উপজেলা প্রদক্ষিণ করে স্বনির্ভরে প্রতিবাদ সমাবেশ শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি খাগড়াছড়ি শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা ও ডিওয়াইএফ-এর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা প্রমূখ।

বিক্ষুব্দ এলাকাবাসী ও সমাবেশে বক্তাদের অভিযোগ, সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন। এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার্থে অবিলম্বে অপহৃতদের উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবী জানান।