কৃত্তিকা ত্রিপুরা হত্যা মামলায় আটক জেএসএস কর্মী শান্ত’র দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

॥ দীঘিনালা প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী কৃত্তিকা ত্রিপুরা ওরফে পুনাতি (১১) হত্যার ঘটনায় আটক জেএসএস কর্মী রবেন্দ্র ত্রিপুরা ওরফে শান্তকে (৩২) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

পুলিশ জানায়, শনিবার উপজেলার লারমা স্কোয়ার থেকে শান্তকে আটকের পর জেল হাজতে প্রেরণ করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়। মঙ্গলবার সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোরশেদ আলমের আদালতে শুনানী হয়। শুনানী শেষে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বলে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এবং দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুস সামাদ।

২৮ জুলাই দুপুরের দিকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয় নয় মাইল এলাকার মৃত নন্দন ত্রিপুরার মেয়ে এবং নয় মাইল ত্রিপুরা পাড়া গুচ্ছগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কৃত্তিকা ত্রিপুরা ওরফে পুনাতিকে (১১)। ওই দিন রাত ১১টার দিকে তার বাড়ির সামনের বাঁশ বাগান থেকে কৃত্তিকার ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবীতে স্থানীয় শিক্ষার্থীসহ সচেতন সমাজ মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচিও পালন করে।

হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে তখন মো. শাহ আলম (৩৩), মো. নজরুল ইসলাম ওরফে ভান্ডারী (৩২), মনির হোসেনকে (৩৮) এবং মনির হোসেন (৩৫) কে গ্রেফতার করা হয়। এ চারজনের রিমান্ড এবং দীর্ঘ তদন্তে ঘটনার সাথে তাদের কোন সম্পৃক্ততার প্রমাণ পায়নি পুলিশ। তারা এখনো জেল হাজতে।

এদিকে ময়না তদন্ত প্রতিবেদনে কৃত্তিকাকে ধর্ষনের প্রমান মেলেনি দাবী করে ওসি আরো জানান, সর্বশেষ শনিবার আটক করা হয় জে এস এস (এমএন লারমা) যুব সমিতির কর্মী শান্তকে। গ্রেপ্তারকৃত শান্ত খাগড়াছড়ি সদর থানায় এক ইউপিডিএফ কর্মী হত্যা মামলার এজহারভুক্ত আসামী।