পরীক্ষামূলক সম্প্রচারেও সফল বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলক কার্যক্রমেও সফল হয়েছে। মঙ্গলবার সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) চ্যাম্পিয়নশিপের সম্প্রচারের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রম পুরেপুরি সফল হয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে সাত দেশের অংশগ্রহণে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করে বিটিভি। বিটিভির সম্প্রচারে দেখা যায়, উপরে লেখা রয়েছে ‘বাংলাদেশ টেলিভিশনের কারিগরি সহায়তায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার’।

তবে এ সময় বিটিভির দুটি চ্যানেল দেখা যায়। তার একটি বঙ্গবন্ধু স্যাটলোইট-১ এর মাধ্যমে সম্প্রচার হয়েছে। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সম্প্রচার স্বত্ব বেসরকারি টিভি চ্যানেল নাইন এর। সম্প্রচারকালে চ্যানেল নাইনের কাছ থেকে সিগন্যাল নিয়ে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বিটিভিকে ফিড দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ জানান, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের এটা ছিলো পরীক্ষামূলক কার্যক্রম। আমরা পুরোপুরি সফল হয়েছি। সম্প্রচারে ছবি খুবই স্বচ্ছ ছিল। তিনি আরো বলেন, আমরা বিভিন্ন বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে সিগন্যাল দিয়েছিলাম, তারা সিগন্যাল রিসিভ করেছে, বলেছে ভালো সিগন্যাল পাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সম্প্রচারিত সাফ ফুটবলের খেলা বিকালে দর্শকরা দেখতে পেয়েছেন। বিসিএসসিএল এর চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, আশা করি অক্টোবরের মাঝামাঝিতে পূর্ণাঙ্গ বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করতে পারবো।
প্রসঙ্গত. গত ১২ মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণের মধ্যে দিয়ে বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশ করে। আর ৩১ জুলাই বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র থেকে গাজীপুর ও রাঙামাটির বেতবুনিয়ায় দুটি উপগ্রহ ভূ-কেন্দ্র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে সার্বক্ষণিক মহাকাশে থাকা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর গতিবিধি ও অবস্থান পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বিষয়গুলো দেখভাল করছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফ্রান্সের থ্যালেস এলিনিয়া। স্যাটেলাইট মহাকাশে উৎক্ষেপণের পর এখন গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে সংকেত দিচ্ছে ও নিচ্ছে। গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে ট্র্যাকিং ও কন্ট্রোলিংয়ের কাজ হচ্ছে এবং পুরো সিস্টেমটিকে টেস্ট করা হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থাকবে। এর ২০টি বাংলাদেশের ব্যবহারের জন্য এবং বাকিগুলো ভাড়া দেওয়া হবে। সরকার আশা করছে, বর্তমানে বিদেশি স্যাটেলাইটের ভাড়া বাবদ যে ১৪ মিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সেই অর্থ সাশ্রয় হবে।