জুরাছড়ি ইউএনও মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরীর বিদায়!

॥ স্মৃতিবিন্দু চাকমা – জুরাছড়ি ॥

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন প্রত্যন্ত জুরাছড়ি উপজেলার নিবার্হী অফিসার মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরীকে বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। ১৯ সেপ্টেম্বর বুধবার অফিসার্স ক্লাবে সন্ধ্যায় এই বিদায় সংবর্ধনা আয়োজন করেন উপজেলা প্রশাসন।এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান উদয়জয় চাকমা।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমাসহ অত্র উপজেলার ইউপি চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। উপজেলা রিসোর্স কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমা,স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিপাশ খীশা, ইউপি চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা, সন্তোষ বিকাশ চাকমা, শান্তিরাজ চাকমা, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কৌশিক চাকমা প্রমূখ।

মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী ২০১৬ সালের ১৪ নভেম্বর জুরাছড়ি উপজেলার ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন। তিনি দীর্ঘ ১বছর ১০ মাস অত্র উপজেলার দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি পদন্নোতি পেয়ে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করবেন। উপজেলা চেয়ারম্যান উদয়জয় চাকমা কৃতজ্ঞতা স্বীকার করে বলেন, ১৯৮৪ সালে জুরাছড়ি উপজেলা গঠিত হওয়ার পর কোন নির্বাহী কর্মকর্তা প্রত্যন্ত বাংলাদেশ ভারত সীমান্তবর্তী বগাখালী এলাকায় পরিদর্শনে যায়নি। বিদায়ী ইউএনও মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধূরী প্রান্তিক জনগোষ্টির উন্নয়নের লক্ষে বিগত বছর ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে দীর্ঘ পথ পায়ে হেটেঁ ৩ দিন বগাখালী এলাকা সফর করেছিলেন।মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধূরী উন্নয়নের অবদান জুরাছড়ি উপজেলাবাসী চিরদিন মনের গভীরে জড়িয়ে রাখবেন এমন মন্তব্য করেন।

বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাশেদ ইকবাল চৌধুরী তার অনুভুতি ব্যক্তকালে বলেন, দায়িত্বে নিয়োজিতকালীন সময়ে যেসব এলাকায় সরকারি সফর করেছেন সেইসব জায়গায় যতটুকু সম্ভব উন্নয়ন করার চেষ্টা করেছিলেন । শিক্ষার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রায় সময় বিভিন্ন বিদ্যালয় পরিদর্শন করতেন। বিদায়কালে জনপ্রতিনিধিদের অনুরোধ করে বলেন সবসময় প্রান্তিক জনগোষ্টির কথা মাথায় রেখে উন্নয়নের ধারা অটুট থাকুক তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।