নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা নিশ্চিতে ২ হাজার অটো চালককে প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নিলেন রাঙামাটির ডিসি

॥ আলমগীর মানিক ॥

নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণসহ পার্বত্য জেলা শহর রাঙামাটিকে পর্যটক বান্ধব সুন্দর সুশৃঙ্খল শহর হিসেবে গড়ে তুলতে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে রাঙামাটির জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ। এর ধারাবাহিকতায় শনিবার থেকে শহরের অভ্যন্তরে চলাচলের একমাত্র মাধ্যম অটোরিক্সা চালকদেরকে প্রশিক্ষণ কর্মসূচী চালু করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসন ও রাঙামাটি পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের পরিচালনায় রাঙামাটিতে চলাচলকারী অন্তত দুই হাজার অটোরিক্সা চালককে এই প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হবে। শনিবার দুপুরে রাঙামাটি শহরস্থ অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের নিজস্ব কার্যালয়ে এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এএইচএম জাহাঙ্গীর আলম, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সিরাজুল ইসলাম, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোঃ ইসমাইল হোসেন, বিআরটিএ রাঙামাটির মোটরযান পরিদর্শক মোঃ শফিকুল ইসলাম উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। রাঙামাটি অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি পরেশ মজুমদার এর সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মসূচী পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শহিদুজ্জামান মহসিন রোমান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেন, রাঙামাটিতে সড়ক দূর্ঘটনা শূণ্যের কৌটায় নামিয়ে আনাসহ অত্রাঞ্চলের বাসিন্দাদের যাত্রী সেবা নিশ্চিতকরণ ও অন্যতম পর্যটন শহর রাঙামাটিকে পর্যটক বান্ধব শহর হিসেবে গড়ে তুলতে হলে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

জেলাকে একটি সুন্দর ও সু-শৃঙ্খল জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে এখানকার রাস্তা-ঘাট যেমনিভাবে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে তেমনিভাবে আগত পর্যটকদের সাথেও ভাতৃত্ববোধ মনোভাবের মাধ্যমে তাদের সেবা নিশ্চিত করতে হবে। এই ক্ষেত্রে আমাদের এখানকার স্থানীয় সকল স্টেক হোল্ডারকে সার্বিকভাবে সচেতন হতে হবে। সেবা প্রদানের সাথে জড়িত প্রতিটি সেক্টরের মালিক-শ্রমিক সকল সংগঠনের পক্ষ থেকে তাদের কর্মী বা সদস্যদেরকে সার্বিক ভাবে সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে।

এই ক্ষেত্রে সর্বাজ্ঞে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন এগিয়ে এসে জেলা শহরের অন্যতম প্রধান যানবাহন অটোরিক্সা চালকদেরকে প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। পর্যায়ক্রমে জেলার প্রত্যেকটি চালকে এই প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হবে। যাতে করে প্রশিক্ষিত এই চালকদের মাধ্যমে যেমনিভাবে পর্যটক বান্ধব যাত্রী সেবার মানোন্নয়ন হবে তেমনিভাবে একটি নিরাপদ সড়কও আমরা নিশ্চিত করতে পারবো।