লংগদুতে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট শাখা উদ্বোধন

॥ লংগদু প্রতিনিধি ॥

রাঙামাটির লংগদুতে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট মাইনীমুখ বাজার এর শুভ উদ্বোধন করেছেন লংগদু সেনা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল এম এম শফিকুর রহমান পিপিএম, পিএসসি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জোন কমান্ডার বলেন, উপজেলার এই মাইনীমুখ বাহজার এলাকায় ইসলামী ব্যাংকের একটি শাখা প্রয়োজন বিধায় তারা এটি খুলেছেন। ইসলামী ব্যাংকিং এজেন্ট শাখা হলেও এলাকার জনসাধারণ মুল ব্যাংকের সুফল ভোগ করতে পারবেন। এখানে আমরা শান্তি চুক্তির পরে যে কাজগুলো করছি তা হলো শান্তি সমৃদ্ধি প্রগতি। ব্যাংক খোলা মানে প্রগতি বা উন্নতির দিকে যাওয়া। আমাদের সকলের নিরলস প্রচেষ্টায় অত্র এলাকায় যে উন্নতি ঘটছে তা অব্যাহত থাকবে। পার্বত্য চট্টগ্রামে আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে সম্প্রদায়িক সম্পৃতি ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্থীতিশীল বজায় রাখা। যাতে ব্যাংক, সরকারী প্রতিষ্ঠান, এনজিও এরা সুন্দরভাবে কাজ করতে পারে। তার জন্য আমরা নিরলসভাবে কাজ চালিয়ে যাবো। এতে সকলের আন্তরিক সহযোগীতার প্রয়োজন।

মঙ্গলবার, (২৫সেপ্টেম্বর), উপজেলা মাইনীমুখ বাজারে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট মাইনীমুখ বাজার এর শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর আবু রেজা মুহাম্মদ ইয়াহিয়া এতে সভাপতিত্ব করেন। ইসলামী ব্যাংক রাঙামাটি শাখার এসবিআইএস অফিসার এসএম মোস্তাফিজুর রহমান এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ইসলামী ব্যাংক রাঙামাটি শাখার এসএভিপি ও শাখা প্রধান ছালাহ উদ্দিন আহম্মদ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাইনীমুখ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার, রাঙামাটি জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ জানে আলম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দিন, লংগদু প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোঃ এখলাস মিঞা খান। মাইনীমুখ বাজার ব্যাবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ঝান্টু। ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্য দেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এর আউটলেট মাইনীমুখ শাখার এজেন্ট ইনচার্জ মোঃ রাসেল।

এছাড়া অতিথি হিসেবে রাবেতা মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, মাইনীমুখ ইসলামিয়া আলীম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ফেরদৌস আলম, মাইনীমুখ বাজার ব্যাবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোঃ কামাল পাশা,
শেষে দোয়া ও মুনাজাত করা হয়। দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন, গাথাছড়া বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের সুপার আলহাজ্ব মাওলানা হাফেজ ফোরকান আহম্মদ।