ফলোআপ : জেএসএস কর্মী মঞ্জু’র হত্যাকারি ২ চাকমা যুবক রাঙামাটিতে অস্ত্রসহ আটক

॥ আলমগীর মানিক ॥

গত রোববার (৭ অক্টোবর ) সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হওয়া জেএসএস (এমএন) লারমা গ্রুপের সক্রিয়কর্মী ২৮ বছর বয়সী মঞ্জু চাকমাকে হত্যার ঘটনায় জড়িত দুই চাকমা সন্ত্রাসীকে আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনীর নেতৃত্বাধীন যৌথ বাহিনী। আটককৃতরা হলো- মহরত চাকমা(২৫) পিতা: সন্দী চাকমা।

অপরজন পূর্ন চাকমা (২৭) পিতা : জ্ঞান জ্যোতি চাকমা। তারা উভয়েই দীঘিনালা উপজেলাধীন শিমুলতলী এলাকার বাসিন্দা। আটককৃতদের কাছ থেকে ১২ রাউন্ড গুলিসহ একটি নাইন এমএম পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃত দুইজনই প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সংগঠন ইউপিডিএফ এর সক্রিয় সন্ত্রাসী বলে জানিয়েছের দায়িত্বশীল একজন উদ্বর্তন কর্মকর্তা।

বুধবার বিকেলে রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের একটি আবাসিক হোটেল থেকে এই দু’জনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটি কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহিদুল হক। নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে জানাগেছে, আটককৃত দু’জনকে লংগদু নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং তাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে কয়েকটি স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

সূত্র জানিয়েছে, গত রোববার বিকেলে দীঘিনালার মেরুংয়ের শিমুলতলী এলাকায় রাস্তায় একা পেয়ে মাথায় গুলি করে জেএসএস(এমএন) লারমা সংগঠনের সক্রিয় কর্মী মঞ্জু চাকমাকে নির্মমভাবে হত্যা করে অস্ত্রটি স্থানীয় দুই যুবকের কাছে রেখে পালিয়ে যায় মহরত ও পূর্ন চাকমা। এসময় তাদের সাথে আরো কয়েকজন ছিলো। পরে অস্ত্রটি নিয়ে যাওয়ার জন্যে উক্ত দুই যুবকের সাথে বারংবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করছিলো তারা।

মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে উক্ত কথোপকথন জানতে পেরে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে ফাঁদ পেতে নানা কৌশলে মঞ্জুর খুনিদের রাঙামাটি নিয়ে আসা হয়। বুধবার বিকেলে শহরের রিজার্ভ বাজারের একটি আবাসিক হোটেলে অভিযান পরিচালনা করে উক্ত দু’জনকে হাতেনাতে আটক করে নিরাপত্তা বাহিনীর চৌকস টিমের সদস্যরা।

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্র জানিয়েছে, আটককৃতদে মধ্যে মহরত চাকমা নিজেই মঞ্জুর মাথায় গুলি করে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে ছদ্মবেশে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে পালিয়ে যায়।