রাজ জামাতা রাজীব রায়ের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন!

॥ আবদুল মান্নান-মানিকছড়ি ॥

খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও মানিকছড়ি মংসার্কেলের প্রয়াত রাজা বীর মুক্তিযোদ্ধা মপ্রুসাইন বাহাদুরের জামাতা রাজীব রায়ের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন রাঙ্গামাটির চাকমা রাজা ও প্রয়াতের আত্মীয় ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়।

রবিবার ১৪ অক্টোবর বিকাল ৩টায় মানিকছড়ির প্রয়াত রাজা বীর মুক্তিযোদ্ধা মপ্রুসাইন বাহাদুরের পারিবারিক শ্মশান মহামুনিতে প্রয়াত রাজীব রায়ের শেষকৃত্যানুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

১২ অক্টোবর খাগড়াছড়ির সাবেক মংসার্কেল বীর মুক্তিযোদ্ধা মপ্রুসাইন বাহাদুরের একমাত্র জামাতা রাজীব রায়ের মৃত্যুর খবরে তিন পার্বত্য জেলার রাজ পরিবারসহ রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক মহলে শোক বিরাজ করছিল। ফলে গতকালের শেষকৃত্যানুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দারবানসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজারো আত্মীয়-স্বজন,গুণগ্রাহী, শুভানুধ্যায়ী,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ,প্রশাসনিক কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে রাজ জামাতা ও রাজনীতিবিদ রাজীব রায়কে শেষ বিদায় দিয়েছেন। স্ত্রী,শ্বশুর-শ্বাশুরীর শ্মশানের পাশে তাকে দাহ করা হয়।

প্রয়াত রাজ জামাতা ও রাজনীতিবিদ রাজীব রায়ের মৃত্যুর পর শোক প্রকাশ করেছেন খাগড়াছড়ির সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা(এম.পি), সাবেক সাংসদ যতীনন্দ্র লাল ত্রিপুরা। প্রয়াতকে দেখতে এসে শোকবার্তা দিয়েছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়ক লে.কর্ণেল রুবায়েত মাহমুদ হাসিব পিএসসি, মানিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ. জব্বার,এম.এ. রাজ্জাক, আওয়ামীলীগ সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন,বিএনপি সভাপতি এম.এ. করিমসহ দলমত নির্বিশেষে সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ,শিক্ষক সমাজ,ব্যবসায়ী, প্রশাসকি কর্মকর্তা, সাংবাদিক প্রমূখ।

গতকালের শেষকৃত্যানুষ্ঠানে উল্লেখিত অতিথি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটির চাকমা রাজা দেবাশীষ রায়, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রবীণ চন্দ্র চাকমা ও বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট আবুদল মালেক মিন্টু। অতিথিরা প্রথমে শোক বই এ শোক বার্তা লেখেন এবং শেষকৃত্যানুষ্ঠানে যোগদান করেন। এ সময় প্রয়াতের ছেলে কুমার সুইচিংপ্রু সাইন ও কুমার নিপ্রুসাইনসহ ৩মেয়ে,নাতী-নাতনী প্রমূখ।

প্রয়াত রাজীব রায় ১৯৩৭ সালে ৩ মে পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতা প্রয়াত রায় বাহাদুর বীর পক্ষ রায়।
এদিকে রাজীব রায়ের মৃত্যুর সংবাদে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি,রাঙ্গামাটি ,বান্দরবানসহ রাজ পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা প্রয়াত রাজীব রায়ের শোকাহত পরিবারে সমবেদনা জানাতে রাজবাড়ীতে ভীড় জমিয়েছেন এবং শোক প্রকাশ করেছেন।

(৮২) ১২ অক্টোবর দুপুর ১২টায় মানিকছড়ি রাজবাড়ীতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি ২ ছেলে,৩ মেয়ে,নাতী-নাতনীসহ দেশ-বিদেশে বহু আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। আগামী ১৪ অক্টোবর বিকাল ২টায় মানিকছড়ির মহামুনিস্থ পারিবারিক শ্মশানে তাকে দাহ করা হবে।