সৌদি প্রবাসীর বাড়িতে রহস্যজনক ‘অপারেশন পিঅ্যান্ডএম’, ৩ ঘর পুড়ে ছাই !

॥ ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শিমলা-রোকনপুর পাতবিলার সৌদি প্রবাসী ফিরোজ আহমেদের বাড়িতে ‘অপারেশন পিঅ্যান্ডএম’, প্রবাসীর ৩ ঘর ছাই হয়ে গেছে। মাঝ রাতে হঠাৎ করেই বাড়িতে আগুন। ঐ বাসার ঘুমন্তরা কিছু বুঝে উঠার আগেই হামলাকারীরা গায়েব। ঘরের দেয়ালে একটি স্টিকার ‘অপারেশন পিঅ্যান্ডএম’।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ২টার দিকে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার শিমলা-রোকনপুর ইউনিয়নের পাতবিলা গ্রামের সৌদি প্রবাসী ফিরোজ আহমেদের বাড়িতে এ আগুন দেয়া হয়। এতে দুটি ঘর ও রান্নাঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এর মধ্যে আগুনে একটি ঘরের মূল্যবান সব আসবাবপত্র পুড়ে গেছে। আগুন দিয়ে যাওয়ার আগে দুর্বৃত্তরা ঘরের দেয়ালে ‘অপারেশন পিঅ্যান্ডএম’ লেখা একটি স্টিকার রেখে গেছেন। ঘটনার সময় বাড়িতে ফিরোজ আহমেদের স্ত্রী জুলিয়া বেগম এবং দুই মেয়ে ফারিয়া মাহমুদ ও রোজ ঘুমিয়ে ছিলেন। তবে কী কারণে এ আগুন দেয়া হয়েছে, তারাও বলতে পারেননি। খবর পেয়ে রাতেই কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুছ আলী ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাড়ির সবাইকে উদ্ধার করেন।

ফিরোজ আহমেদের ছোট ভাই হারুন-অর রশিদ বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে কারও পারিবারিক ও সামাজিক বিরোধ নেই। তারপরও রাতে এ ধরনের কমান্ডো স্টাইলে আগুন দেয়া সবাইকে ভাবিয়ে তুলেছে। আমরা সবাই ভীত-সন্ত্রস্ত। বিশেষ করে অপারেশনের স্টিকার নিয়ে সবাই আতঙ্কে আছি।’ ইউপি মেম্বর নাসির উদ্দীন জানান, দুর্বুত্তরা রাত ২টার দিকে প্রথমে বাড়ির প্রাচীর টপকে ভেতরে প্রবেশ করেন। এরপর বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। পরে বাড়ির পূর্বপাশের একটি রুমের জানালা দিয়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শামছুর রহমান জানান, খবর পেয়ে বাড়িতে গিয়ে সব জানালা-দরজা বন্ধ পাই। পুলিশ এলে বাড়ির মেইন গেট ভেঙে ভেতর থেকে মা ও দুই মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। তিনি বলেন, ‘ডাকাতের ভয়ে একটি ঘরে লুকিয়ে ছিলেন তারা। পরে আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা দরজা খুলে দেন।’ কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুছ আলী জানান, কে বা কারা, কী কারণে এ হামলা করেছে, তা বলা যাচ্ছে না। তবে ঘটনার তদন্ত চলছে।