ব্রেকিং নিউজ

কাউখালীর সুন্দরী তুমাচিং মারমা ইয়াবা নিয়ে ধরা পড়লো বান্দরবানে

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

নিজের সৌন্দর্যকে পূঁজি করে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রি করে আসছিলেন রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার মারমা সুন্দরী তরুনী তুমাচিং মারমা। দেখতে খুব স্মার্ট। কথা-বার্তায় দামী পোশাকে বেশ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সুন্দর মুখশ্রী নিয়ে অনায়াসে মিশে যেতে পারে উঠতি বয়সী মাদক সেবী তরুনদের সাথে।

সুন্দরীর মায়াজালে আটকা পড়ে অনেকেই হাবুডুবুও খেয়েছে। আর এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সুন্দরী তুমাচিং বেশ আয়েশিভাবেই চালিয়ে যাচ্ছিলেন ইয়াবা বিক্রির ব্যবসা। কিন্তু বেরসিক পুলিশ বাগড়া বসিয়ে দেয় তুমাচিংয়ের মাদকের ব্যবসায়। দীর্ঘদিন ধরে রাঙামাটি ও বান্দরবানে এই ব্যবসা করে অবশেষে ধরা পরলো বান্দরবান জেলা পুলিশের গোয়েন্দাদের জালে।

রাঙামাটির ইয়াবা ব্যবসায়ী তিনি, বান্দরবানে এসে ইয়াবা বিক্রি করতেন তরুণদের কাছে। বান্দরবানের বালাঘাটা যাত্রী ছাউনীর সামনে থেকে বুধবার ভোরে এই ইয়াবা ব্যবসায়ি তরুণীকে আটক করে পুলিশ। সে রাঙামাটি জেলার,কাউখালি উপজেলার বেতবুনিয়া ইউনিয়নের মৃত রেপতি মারমার মেয়ে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, অবৈধ ইয়াবা বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে জেলা শহরের বালাঘাটা যাত্রী ছাউনিতে অবস্থান করছে এই তরুণী, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে ইয়াবাসহ আটক করে। এসময় তার কাছ থেকে ৬ হাজার ৬৯১ পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য দুই লক্ষ সাত হাজার তিনশত টাকা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই তরুণী জানান, সে দীর্ঘদিন যাবৎ কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত এলাকা থেকে ইয়াবা নিয়ে বান্দরবানসহ আশপাশ এলাকায় ইয়াবা ট্যাবলেট সরবরাহ করে আসছিল।

বান্দরবানের পুলিশের গোয়েন্দা শাখার পুলিশ পরিদর্শক জসিম উদ্দিন জানিয়েছেন, উক্ত ঘটনায় আটককৃত তরুণীর বিরুদ্ধে সদর থানায় ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন (সংশোধনী/২০০৪) এর ১৯(১) টেবিলের ৯(খ) ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।