লংগদুতে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে যুবদলের আলোচনা সভা!

॥ লংগদু প্রতিনিধি ॥

“দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্ধার করতে হবে, দেশের গণতন্ত্রকে পুনঃরুদ্ধার করতে হবে, আমরা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবী আদায়ের জন্য মাঠে থাকলাম।” তার জন্য সকল নেতা-কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জাতীয়ছেন বক্তারা।

বুধবার, ৭নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি যুবদল লংগদু উপজেলা শাখার উদ্যোগে উপজেলার মাইনীমুখ বাজারে আয়োজিত আলোচনা সভায় দলীয় নেতৃবৃন্দগন বক্তব্যে এ আহবান জানান।

লংগদু উপজেলা যুবদলের সভাপতি মোঃ জানে আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হাসান টিটুর পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবু নাছির।

প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারেক দেওয়ান, সাবেক উপজেলা জামায়াতের আমীর ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম মুরাদ, সিঃ সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ।

এছাড়া উপজেলা বগাচতর ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল গফ্ফার ভূইয়া, গুলশাখালী ইউনিয় বিএনপি’র সভাপতি মোঃ নয়ন মেম্বার, আটারকছড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাঃ সম্পাদক মোঃ ইউনুছ মাষ্ঠার, ভাসাইন্যাদম ইউনিয়ন বিএনপি’র সা:সম্পাদক আব্দুল জলিল,কালাপাকুজ্জা ইউনিয়ন বিএনপি’র সাঃ সম্পাদক মোঃ কামরুল ইসলাম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন ভূইয়া, উপজেলা কৃষক দলের সভাপতি তৈয়ব আলী, উপজেলা মৎস্যজীবি দলের সভাপতি মোঃ জহির, তাতী দলের সভাপতি মোঃ ইউসুফ মিয়া বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা আরো বলেন, এই সরকার মিথাবাদী, যারা কথা দিয়ে কথা রাখেনা। বিগত দশ বছরের তারা যে উন্নয়নের কথা বলে তা শুধু সরকার দলের ও তাদের চেলা চামুন্ডাদের সাফল্য ছাড়া আর কিছুই হয়নি। বর্তমান সরকারের এত জনপ্রিয়তা থাকলে সাহস করে একবার নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচন দিয়ে দেখুন। ক্ষমতা চিরজীবন ধরে রাখতে পারবেন না। আপনার বাবাও বাকশাল গঠন করে সেটা পারেনি। এখন দেশের মানুষ ঐক্য ফ্রন্টের আহবানে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। জনগনকে ভোট দেওয়ার অধিকার আদায়ে জন্য তৃনমূল পর্যায়ে সকল নেতাকর্মীদের ধৈর্য ধরে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান বক্তারা।