ইউপিডিএফকে আইন করে নিষিদ্ধ করার দাবী জেএসএস’র!

॥ আল-মামুন,খাগড়াছড়ি ॥

ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিহত করে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহী ইউপিডিএফকে আইন করে নিষেধের দাবী জানিয়ে এম এন লারমা সমর্থিত জেএসএস নেতাকর্মীরা। জুম্ম জাতিকে নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের ভিন্ন নামে পরিচিতি ঘোষনারও আহবান জানানো হয় স্মরণসভা থেকে।

এতে নেতৃবৃন্দরা বলেন, দীর্ঘ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর পার্বত্য চুক্তি হলেও তা এখনো বাস্তবায়ন হয়নি। চুক্তিবাস্তবায়নে সকলকে আরো আন্তরিক হওয়ার দাবী জানিয়ে বক্তরা এম এন লারমার স্মৃতিচারণ করে পাহাড়ের বিভিন্ন সময়ে এম এন লারমার অবদানের কথা তুলে ধরেন।

সে সাথে বাংলাদেশের সংবিধানে পার্বত্য জেলায় বসবাসকারী নৃগোষ্ঠীর অধিকার বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করে নিরাপত্তাসহ মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নের দাবী জানানো হয়। শনিবার সকালে এম এন লারমার ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে প্রভাতফেরী শেষে ফুল দিয়ে (জেএসএস) এম এন লারমার স্মৃতি ভাষ্কর্যে শ্রদ্ধা ও স্মরণসভায় নেতাকর্মীরা এসব কথা বলেন।

তুষার চাকমার সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) লারমা সমর্থিত কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপন কমিটির সভাপতি প্রফুল্ল কুমার চাকমা।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেএসএস কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক বিষয়ক বিভু রঞ্জন চাকমা, কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা, শরণার্থী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক সন্তোষিত চাকমা বকুল, স্থানীয় মুরুব্বি-রবি শঙ্কর তালুকদার, কেন্দ্রীয় যুব সমিতির সংগঠনিক সম্পাদক দীপু চাকমা, পিসিপির কেন্দ্রীয় সুমেধ চাকমা, খাগড়াছড়ি জেলা জেএসএস সভাপতি অরাধ্যাপাল খীসা, সাধারণ সম্পাদক সিন্ধু কুমার চাকমা প্রমূখ।

পার্বত্য জনসংহতি সমিতি জেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত নেতাকর্মীরা শনিবার সকালে প্রিয় নেতার স্মৃতি ভাস্কর্য্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে মহাজনপাড়াস্থ জেএসএস (এমএন লারমা সমর্থিক) দলীয় কার্যালয়ে স্মরণ সভা থেকে এসব দাবী তুলেন। স্মরণ সভা শেষে মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। বিকেলে এমএন লারমার আত্মার শান্তি কামনা ও স্মরণে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস উড়ানোর কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়।