৩৫ ধরণের অস্ত্র চালাতে পারি, আমার জোনের মধ্যে কোন প্রকার সন্ত্রাস সহ্য করবো নাঃ লে. ক. মাহাবুবুল ইসলাম

॥ মো: ওমর ফারুক সুমন – বাঘাইছড়ি ॥

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার ২৭ বর্ডারগার্ড ব্যাটালিয়ন এর নবাগত জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মাহাবুবুল ইসলাম (পদাতিক)  প্রশিক্ষণ টিলা বর্ডারগার্ড বেসরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়ের পিএসসি পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিয়েছেন এবং স্থানীয় কার্বারী, বিভিন্ন শ্রেণি পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের সাথে পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা করেছেন। ১১ নভেম্বর ২০১৮ রবিবার সকাল ১১ ঘটিকায় প্রশিক্ষণ টিলা বর্ডারগার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জোন অধিনায়ক অনুষ্টান স্থলে পৌছালে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ফুলের তোড়া ও ফুল ছিটিয়ে বরণ করে নেয় এবং শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী মো: মনির হোসেন। কোরান তিলোয়াত ও ত্রিপিটক পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্টান শুরু করা হয়।

বর্ডারগার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্টানে প্রধান অতিথী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২৭ বর্ডারগার্ড ব্যাটালিয়ন মারিশ্যা জোনের জোন অধিনায়ক লে: কর্ণেল মাহাবুবুল ইসলাম (পদাতিক)  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দীঘিনালা উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার সুপায়ন খীসা এবং কাচালং মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো: সিরাজুল ইসলাম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জোন অধিনায়ক বলেন আমার অধীনে আপনাদের মত আরো দশটা ক্যাম্প আছে অঞ্চল আছে আমি চেষ্টা করি প্রতিটা জায়গায় যাওয়ার জন্য আমার দৃষ্টিতে নেয়ার জন্য, আপনারা অনেকেই বলেছেন আমি ব্যস্ত, আমি মোটেও ব্যস্ত নই আমার ব্যস্ততা সবই আপনাদের জন্য, আমি আপনাদের জন্য এসেছি সরকার আপনাদের জন্য আমাকে পাঠিয়েছে এখানে আমি সরকারের একটা অংশ হিসেবে বলছি আপনারাই সরকার আমার সামনে যারা বসে আছেন সবাই একজন করে সরকার, সুতরাং আপনাদের জন্যই আমাকে বাংলাদেশ সরকার এখানে পাঠিয়েছেন সরকারের পক্ষে আংশিক দায়িত্ব পালন করার জন্য,  সেই সুবাদে আমি এখানে জোন কমান্ডার, আমি আপনাদের পাশে আছি থাকবো সবসময়, আমার ২৩ বছরের চাকুরী জীবনে পার্বত্য চট্রগ্রামে আমার এটি তৃতীয় বার আসা আমি ছিলাম দীঘিনালায়, বাবুছড়ায়, রাঙ্গামাটি কুতুকছড়ি, নানিয়াচর আমি এই অঞ্চলটা পুরোটাই চিনি আল্লাহর অশেষ রহমতে বতর্মানে আমি বাঘাইছড়িতে অবস্থান করছি জোন কমান্ডার হিসেবে।

জোন অধিনায়ক বলেন সন্ত্রাসীদের কোন ছাড় নয় আমার লোকজনদের স্পষ্ট ভাষায় বলা আছে সন্ত্রাসী দেখা মাত্রই গুলি করতে সন্ত্রাসীদের সাথে কোন আপোস নয় আমি পদাতিক বাহিনী থেকে এসেছি, আমি ৩৫ ধরণের অস্ত্র চালাতে পারি আমার থেকে ভালো গুলি নিশ্চই কেউ চালাতে পারেনা আপনাদের মাধ্যমে আমি সন্ত্রাসীদের এই বার্তা দিতে চাই,  আমার জোনের সীমানার মধ্যে কোন প্রকার সন্ত্রাস, সহ্য করা হবে না, দেখা মাত্রই গুলি করা হবে। আপনারা যারা হেডম্যান কার্বারী আছেন আপনাদের সম্মান আমার কাছে সবার উপড়ে আপনাদের কোন জাত ধর্ম নেই আপনারা সবার, ঠিক তেমনি আমিও আপনাদের সবার সবার জন্য আমার দরজা সর্বদাই খোলা রয়েছে। আমি পাহাড়ীর জন্যেও আছি বাঙ্গলীর জন্যেও আছি। আপনারা সকল প্রয়োজনে আমাকে ডাকবেন আমি সাড়া দিবো।

জানা যায়, দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে জোন কমান্ডার প্রতিদিন কোন না কোন সংগঠনকে জোনে সৌজন্য সাক্ষাতে ডাকছেন। পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় জোন কমান্ডার লেঃকর্নেল মাহাবুবুল ইসলাম নিজের পরিচয় দিয়ে সকলের পরিচিতি অবগত হন। উপস্থিত সকলের কাছ থেকে এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি সম্বন্ধে খোঁজ খবর নেন। এলাকায় কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি না ঘটানোর পরামর্শ দেন। তিনি আরো বলেন, এলাকায় কোন প্রকার সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটলে সাথে সাথে জোনকে অবগত করার পরামর্শ দেন। তিনি  বলেন, সন্ত্রাসী গোষ্ঠির কোন জাত-ধর্ম বা বর্ণ নেই।  যে যতো ক্ষমতাধর হোক বা যে রাজনৈতিক সংগঠনের নেতা হোকনা কেন অপরাধীকে কোন প্রকার ছাড় দেওয়া হবেনা।

জোন অধিনায়ক মাহাবুবুল ইসলাম বলেন, এলাকায় সাধারণ জনগণ নিরাপদে বসবাস সহ ব্যবসা-বানিজ্য করতে সব ধরণের সহোযোগীতা দিবে মারিশ্যা জোন। এলাকার দরিদ্র ও অসহায়দের শিক্ষা বিয়ে বা যেকোন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের কোন সহোযোগীতার প্রয়োজন হলে মারিশ্যা জোন পাশে থাকবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন তিনি। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন কেউযদি জিপিএ -৫ পাও তাদের জোনের পক্ষ থেকে উন্নমানের পুরুষ্কার দেয়ারও ঘোষণা করেন, সন্তানের বাবা মা কেও পুরস্কৃত করাহবে। জোন কমান্ডারের এমন প্রতিশ্রুতিতে বাঘাইছড়িবাসী খুশি ও নিরাপদ বোধ করছেন।