শিক্ষার্থীদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে শিক্ষকদেরও জ্ঞান অর্জন করতে হবেঃ ডিসি মামুন

॥ আলমগীর মানিক ॥

পাহাড়ের শিক্ষার্থীদের প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক শিক্ষার আলোকে পাঠদান করতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদেরকেও প্রযুক্তি বিষয়ক জ্ঞান অর্জনের কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

মঙ্গলবার রাঙামাটি সদর উপজেলাধীন তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুমের জন্য প্রজেক্টর অনুদান দেয়ার সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আরো বলেন, প্রাথমিক স্তরে দক্ষ ও মেধাবী শিক্ষক ছাড়া শিক্ষার মান উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি বলেন, প্রাথমিক স্তরে যদি শিশুরা মানসম্মত শিক্ষা না পায়, তাহলে তারা মাধ্যমিক স্তরে গিয়ে বড় ধরনের সমস্যায় পড়বে। জেলা প্রশাসক বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, শিক্ষার মানও এগিয়ে নিতে হবে।

মঙ্গলবার রাঙামাটি শহরের স্বর্ণটিলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলাপ্রশাসক এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি বলেন, প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষার লক্ষ্যেই বর্তমান সরকার দেশের প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এক্কেবারে প্রাইমারি লেভেল থেকে প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় ক্লাস রুমগুলোতে স্থাপন করা হয়েছে মাল্টিমিডিয়া শ্রেণীকক্ষ। এটির মাধ্যমেই আমাদের আগামী প্রজন্মকে প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থার হাতেখড়ি শুরু হবে। এতে করে শিশুরা আগামীতে প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক শিক্ষার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠবে। একারনেই আমাদের শিক্ষকদের নানা কৌশল অবলম্বনের পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থা রপ্ত করার কোনো বিকল্প নেই। সুশিক্ষিত শিক্ষকদের মাধ্যমেই শিক্ষার্থীদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। তাদের মধ্যে দেশ প্রেম জাগিয়ে তুলতে হবে। আমাদের নতুন প্রজন্মকে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে না পারলে ভবিষ্যতে তাদেরকে দেশের সম্পদে রূপান্তর করা কষ্টকর হয়ে উঠবে বলেও মন্তব্য করেন জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ।

অনুষ্ঠানে অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক বলেন, আপনার সন্তান সঠিক সময়ে বিদ্যালয়গামী হচ্ছে কিনা সেটি নিবিড়ভাবে তত্বাবধান করুন। সন্তানকে বিদ্যালয়ে পাঠানোর সময় তাকে টিফিন বাক্সের মাধ্যমে তার খাদ্য দিয়ে দিন। তার পোশাক সঠিক এবং পরিচ্ছন্ন অবস্থায় তাকে বিদ্যালয়ে পাঠানো নিশ্চিত করুন। একজন সচেতন অভিভাবক হিসেবে সঠিক সময়ে আপনার সন্তান বাড়িতে পৌছে কিনা সেটির প্রতি খেয়াল রাখুন। সন্তানের সাথে বন্ধুত্বপূর্ন আচরণ বজায় রাখতেও অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

এর আগে শহরের বনরূপাস্থ বনরূপা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের হাতেও আরো একটি প্রজেক্টর তুলে দেন জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ। এছাড়াও কাপ্তাই হ্রদের ওপারে বালুখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়েও মাল্টিমিটিয়া ক্লাসের সরঞ্জাম বিতরণ করেছেন জেলা প্রশাসক। রাঙামাটি সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছাঃ সুমনী আক্তারসহ স্কুলের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষীকারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।