ব্রেকিং নিউজ

রাঙ্গামাটির অনলাইন ব্লাডব্যাংক জীবন’র উদ্যোগে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস পালিত!

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

৫ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস৷ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ১৯৮৫ সালের ১৭ ডিসেম্বরের অধিবেশনে প্রতি বছর ৫ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস পালনের জন্য সরকারসমূহকে আহবান জানানো হয়। দুনিয়ার সর্বত্র স্বেচ্ছাসেবীদের অবদান সম্পর্কে গণসচেতনতা এবং ঘরে ও বাইরে স্বেচ্ছাসেবায় অধিক সংখ্যক মানুষের অংশগ্রহণে উৎসাহ প্রদান, আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস পালনের মূল উদ্দেশ্য। প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালন করবে বিশ্বের হাজারো স্বেচ্ছাসেবী৷

এবার পার্বত্য রাঙামাটিতে প্রথমবারের মত দিবসটির স্থানীয় আয়োজক হবার গৌরব অর্জন করেছে “জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ১৮” প্রাপ্ত সংগঠন পার্বত্যাঞ্চলের সর্বপ্রথম অনলাইন ব্লাড ব্যাংক Jibon”জীবন”৷
Jibon”জীবন” এর সাধারণ সম্পাদক সাজিদ-বিন-জাহিদ (মিকি) জানান, “আমরা ৭ বছর ধরে নিঃস্বার্থভাবে এই অঞ্চলের মানুষদের জীবনমান উন্নয়নে ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি৷ পার্বত্যাঞ্চলে স্থিতিশীল উন্নয়ন ও একটি আত্মনির্ভর সম্প্রদায় বিনির্মাণ আমাদের লক্ষ্য৷”
এবারের আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবসের মূল প্রতিপাদ্য “স্বেচ্ছাসেবীদের দ্বারা স্থিতিশীল সম্প্রদায় নির্মাণ৷” সাজিদ জানান, জাতিসংঘের স্বেচ্ছাসেবক কর্মসূচি (ইউ এন ভি) এমন একটি সংস্থা যা বিশ্বব্যাপী, উন্নয়নের লক্ষ্যে এবং শান্তি রক্ষার্থে স্বেচ্ছাসেবী মনোবৃত্তিকে উদ্ধুদ্ধ করে । ইউ এন ভি হল , জার্মান ভিত্তিক একটি অলাভজনক সংস্থা। ১৩০ টি দেশে তারা সক্রিয় রয়েছে এবং ৮৬ টি দেশে তাদের ফিল্ড ইউনিট রয়েছে।
তারা জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচী (ইউএনডিপি) এর দপ্তরের সাহায্যে তাদের কার্যক্রম প্রচার করে এবং ইউএনডিপি এর কার্যনির্বাহী বোর্ডের নিকট প্রতিবেদন পেশ করে। এবার রাঙামাটি থেকে মোট ৭৫টি আবেদন সংগ্রহ করে Jibon”জীবন” যার মধ্য থেকে ৬১টি আবেদন গৃহীত হয়েছে UNV এর কাছে৷ এই ৬১ জন স্বেচ্ছাসেবক ৫ তারিখ রাঙামাটির বিভিন্ন স্থানে তাদের কার্যক্রম ও জরিপ কার্য পরিচালনা করেছে৷ এবারই প্রথম রাঙামাটির কোন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সরাসরি UNV এর স্থানীয় আয়োজক হিসেবে কাজ করার সরাসরি সুযোগ পেয়েছে৷
রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী ধীমান সরকার বাপ্পী বলেন, “আমরা দীর্ঘদিন ধরে পার্বত্যাঞ্চলে Jibon”জীবন” এর কাজ দেখে আসছি৷ আমরা আনন্দিত সংগঠনটি এখন আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলের বিভিন্ন উদ্যোগের সাথে জড়িত হচ্ছে দেখে৷ আমরাও এর মাধ্যমে সুযোগ পাচ্ছি নিজেদের কাজগুলো বিশ্বের কাছে তুলে ধরার৷”
রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী প্রমিতি চাকমা বলেন, “আমি একজন মেডিকেল পড়ুয়া শিক্ষার্থী এবং আমি মানুষের সেবার উদ্দেশ্যেই মেডিকেলকে বেঁছে নিয়েছি৷ আমি যখন থেকে Jibon”জীবন” এর কাজ সম্পর্কে অবগত তখন থেকেই সাথে আছি৷ এখন সংগঠনটি যেভাবে UNV এর স্থানীয় আয়োজক হবার মত গৌরব অর্জন করেছে তা মোটেও আমার কাছে আশ্চর্য্যের নয়৷ আমি বিশ্বাস করি এখনো অনেক দূর যেতে হবে৷”
সংগঠনটির সহ-সভাপতি ইউনুস সুমন জানান, “আমি আনন্দিত আমাদের সংগঠন এমন একটি আয়োজনের অংশীদার হওয়ায়৷”
এবারের আয়োজনটির ধারাবাহিকতা রক্ষা করে সামনে আরো বড় পরিসরে আয়োজনটি করার প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন আয়োজকেরা৷