রাঙামাটিতে প্রতারক চক্রের অভিনব কায়দায় চাঁদাবাজী!

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙামাটিতে অভিনব কায়দায় চাঁদাবাজী করছে একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র। মুঠোফোনে বড় বড় ব্যবসায়ী ও ঠিকাদারদের টার্গেট করে এই চাঁদাবাজির ফাঁদে ফেলে ইতোমধ্যে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন ব্যবসায়ী।

মুঠোফোনে ব্যবসায়ীদের ফোনে সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বা রাজনৈতিক নেতাদের পরিচয় দিয়ে ফোন করা হয়। তারপর তাকে জানানো হয়, কোনো একটি মানবিক আবেদন। ওই আবেদনের রেশ ধরে বেশ কিছু টাকার উল্লেখ করে বলা হয়। আমরা কিছু সহায়তা করেছি আপনিও সহায়তা করুন, বলে একটা টাকার অংক উল্লেখ করা হয়। ওই টাকা পৌঁছানোর কোনো মিডিয়া বা বিকাশ অথবা রকেট নাম্বার দিয়ে বলা হয় টাকাটা সেখানে পাঠাতে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মানুষ ভড়কে গিয়ে টাকা পাঠায়।

রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি বেলায়েত হোসেন ভুঁইয়া জানান, মঙ্গলবার তার কাছে একটি ফোন আসে। অপর প্রান্ত থেকে জানানো হয় তিনি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জানান একজন অসহায় মানুষ তার পরিচিত। তিনি মারা যাওয়ায় তার লাশ পাঠানোর ব্যবস্থা করতে গিয়ে ৩৫ হাজার টাকা ভাড়া ঠিক করা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট ৩০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছেন। বাকি টাকাটা আঞ্জুমানে ইসলামের এম্বুল্যান্স পাওনা আছে ওই টাকাটা তিনি পাঠিয়ে দিলে ম্যাজিস্ট্রেট খুশী হবেন। চেম্বার সভাপতি আগে থেকেই চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের নাম জানতেন তাই মাত্র ৫ হাজার টাকার দাবি তিনি মিটিয়ে দেন।

বুধবার একইভাবে রাঙামাটি শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও দৈনিক রাঙামাটির প্রকাশক মোঃ জাহাঙ্গীর কামালের কাছেও একইভাবে জেলা জজের কথা বলে ফোন আসে এবং ২০ হাজার টাকা পরিশোধের জন্য একটি এ্যাম্বুলেন্স কোম্পানীর নাম্বার দেওয়া হয়। কামাল সাহেবের বিষয়টি সন্দেহ হলেও তিনি টাকাটা যোগাড়ও করেন। তবে তিনি টাকাটি রকেট একাউন্টে না পাঠিয়ে সরাসরি আদালতে গিয়ে পরিশোধের সিদ্ধান্ত নেন। এতে সন্দেহ দূর হবে বলে জানান তিনি। এর মধ্যে তারা বারবার তাকে তগাদা দিতে থাকে। অবশেষে তিনি আদলত ভবনে গিয়ে দেখেন জজ সাহেবের নাম ঠিক থাকলেও তিনি বর্তমানে দেশের বাইরে আছেন। তখনি বিষয়টি খোলাসা হয়ে যায় যে তারা প্রতারক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান গত কয়েকদিনের মধ্যে তারা এভাবে প্রতারণার শিকার হয়েছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তবে সাধারণ ব্যবসায়ীদের এ বিষয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে প্রশাসন।
প্রসঙ্গত এর কিছুদিন আগে রাঙামাটিতে এভাবে ডিসি ও ইউএনওদের নাম্বার ক্লোন করে ফোন করার ঘটনা ঘটে।