ব্রেকিং নিউজ

রাঙামাটিতে চলছে ভোট গ্রহণঃ কাউখালীতে যুবলীগকর্মী নিহত হয়েছে হৃদরোগে – আ:লীগ

॥ আলমগীর মানিক ॥

জনসাধারনের সরব উপস্থিতিতে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে চলছে ভোট গ্রহণ। জাতীয় সংসদের ২৯৯ নং রাঙামাটি আসনে কাক ডাকা ভোর থেকে বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ দীর্ঘ লাইনে তাদের মূল্যবান ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে। নিরাপত্তা বাহিনী ব্যাপক উপস্থিতি রোববার রাঙামাটি জেলার ২০৩টি ভোট কেন্দ্রে সর্বমোট ৪ লাখ ১৮ হাজার ২৪৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে। বেলা পৌনে দশটার সময় শহরের চম্পকনগর এলাকায় ভোট দিয়েছেন নৌকা প্রতিকের প্রার্থী দীপংকর তালুকদার নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন।

সকাল আটটায় জেলা শহরের রানী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট দিয়েছেন জেএসএস সমর্থিত সিংহ প্রতীকের প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার। এসময় তিনি সাংবাদিকদের জানান, জেলার বাঘাইছড়ি, লংগদু, নানিয়ারচরসহ বিভিন্ন স্থানে সিংহ প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে শহরের সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মনিস্বপন দেওয়ান।

এদিকে, জেলার বিভিন্ন স্থানে ধানের শীষ ও নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। জেলার কাউখালী উপজেলাধীন কাসখালী এলাকায় আওয়ামীলীগ-বিএনপি উভয়পক্ষের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এই ঘটনায় অন্তত ১০জন আহত হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

এই ঘটনায় ঘাগড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাসের উদ্দিন আহত হলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তিনি মারা গেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মঞ্জুর আলম। রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী দীপংকর তালুকদার জানিয়েছেন, নিহত যুবলীগ নেতা হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে চট্টগ্রাম নিয়ে গেলে তিনি মারা যান।

এদিকে, রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, শান্তিপূর্নভাবে চলছে ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া। কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার তথ্য তার কাছে নেই।

জেলার রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিস সূত্রে জানা গেছে, আজকের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাঙামাটিতে সেনাবাহিনী-বিজিবি-পুলিশ-র‌্যাব, আনসার-ভিডিপিসহ প্রায় আট হাজার সদস্য নিয়োজিত রয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রেই রয়েছে অন্যান্য বাহিনীর ন্যায় সেনা সদস্যদের উপস্থিতি।

এদিকে ধানের শীষ প্রার্থীর পক্ষ থেকে জেলা বিএনপির নেতারা জানিয়েছেন, রাঙামাটি বিভিন্ন উপজেলার পাশাপাশি জেলা শহরের ভোট কেন্দ্রগুলোতেও ক্ষমতাসীনদের নেতাকর্মীরা ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে যেতে দিচ্ছেনা। শুধুমাত্র আওয়ামীলীগের সমর্থক হলেই ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার অনুমতি দিচ্ছে অন্যথায় বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

২টি পৌরসভাসহ ১০টি উপজেলা ও ৫০টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ২৯৯নং রাঙামাটি জেলার আয়তন ৬ হাজার ১১৬.১৩বর্গ কিলোমিটার। এই আসনটিতে মোট জনসংখ্যার পরিমাণ ৬ লাখ ২০ হাজার ২১৬জন। জেলায় এবার ভোটারের সংখ্যা ৪ লক্ষ ১৮ হাজার ২৪৮জন। তার মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ৯৭ লাখ ৮৫৩ এবং পুরুষ ভোটারের সংখ্যা হলো ২ লাখ ২০ হাজার ৩৯৫ জন।