দীঘিনালায় ইউপিডিএফ কর্তৃক গ্রামের মুরব্বী অপহরণ!

॥ বিশেষ প্রতিবেদক ॥

খাগড়াছড়ির দীঘিনালার দুর্গম মেরুং ইউনিয়নের পনছড়ি গ্রামের মুরব্বী মনিয়া চাকমা (৪০) নামের এক ব্যাক্তিকে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার জন্য অপহৃতের স্বজনরা পার্বত্য চুক্তি বিরোধী দল ইউপিডিএফকে দায়ী করেছে।

স্থানীয় একটি সূত্রে জানা যায়,  ১০ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ইউপিডিএফের একটি সশস্ত্র দল পনছড়ি গ্রামে হামলা করে। এসময় ইউপিডিএফের সশস্ত্র কর্মীরা গ্রামের লোকজনদের মারধর করতে থাকে, পরবর্তীতে উক্ত গ্রামের মুরব্বী মনিয়া চাকমাকে ব্যাপক নির্যাতনের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায়। তাদের সন্দেহ ছিল মনিয়া জেএসএস সংস্কারকে ইউপিডিএফের গতিবিধির গোপন তথ্য সরবরাহ করে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেএসএস সংস্কারের এক নেতা মুঠোফোনে প্রতিবেদককে জানান, আমি শুনেছি পনছড়ি গ্রামে গতকাল রাতে ইউপিডিএফের একটি সশস্ত্র দল হানা দেয় এবং পরবর্তীতে উক্ত গ্রামের মুরব্বী মনিয়া চাকমাকে ব্যাপক মারধর করে অপহরণ করে নিয়ে যায়। সকাল থেকেই এই ব্যাপারে উক্ত গ্রামের কয়েকজনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাদের মোবাইল বন্ধ থাকায় তা আর সম্ভব হয়নি।

তিনি আরো জানান, মনিয়া চাকমা জেএসএস সংস্কারের কোন কর্মী বা নেতা নন। তার সাথে জেএসএসের কোন সম্পৃক্ততাও নেই। তার মত একজন সাধারণ মানুষকে এইভাবে নির্যাতন ও অপহরণের ঘটনা সত্যিই নিন্দনীয় এবং এই ঘটনাই প্রমাণ করে যে ইউপিডিএফ পাহাড়ীদের অধিকার রক্ষার লড়াইএর নামে বাস্তবে তাদের শোষণ করছে।

স্থানীয় আরেকটি সূত্রে এটাও জানা যায় যে অপহৃত মনিয়া চাকমাকে ব্যাপক নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে কিন্তু এই বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইউপিডিএফ’র এক নেতা বলেন, এ ঘটনার সাথে ইউপিডিএফ’এর কোন সম্পৃক্ততা নেই এটি সংস্কারের নিজস্ব কোন্দলের কারণে হয়েছে।