পাহাড়ে বৌদ্ধধর্মীয় সর্বোচ্চ গুরু বনভান্তের সুউচ্চ মুর্তি উদ্বোধন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

কাপ্তাই হ্রদের ধারে দাঁড়িয়ে আছে বৌদ্ধ সাধক মহাস্থবির বনভান্তের ২৪ ফুট উঁচু মূর্তি। যা দেখার জন্য প্রতিদিনই ভক্তরা ভিড় জমান সেখানে। ১২ জানুয়ারী শনিবার ছিল বনভান্তের শততম জন্মদিন। এদিন রাঙামাটির বালুখালী ইউনিয়নের নির্বাণ নগর বৌদ্ধবিহারে তার মূর্তিটি উদ্বোধন করা হয়েছে।

মূর্তিটি উদ্বোধন করেন বনভান্তের শিষ্য শ্রীমৎ ধর্মতিষ্য মহাস্থবির (স্বর্গপুরী ভান্তে)। এ সময় বক্তব্য দেন বালুখালী ইউপি চেয়ারম্যান বিজয়গিরি চাকমা, মূর্তিটির নির্মাতা বিভাষ চাকমা প্রমুখ। উদ্বোধনের শুরুতে বনভান্তের মূর্তির পাদদেশে পঞ্চশীল প্রার্থনা ও প্রদীপ প্রজ্বালন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেন শত শত বৌদ্ধ নারী-পুরুষ।

পরে নির্বাণ নগর বৌদ্ধবিহার প্রাঙ্গণে এক ধর্মীয় সভার আয়োজন করা হয়। ধর্মীয় সভার শুরুতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন অনন্যা চাকমা। ধর্মালোচনা শেষে এলাকার মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে অভিধান, কলমসহ বিভিন্ন শিক্ষাসমগ্রী বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে সুখ-শান্তি ও বাংলাদেশ সরকারের মঙ্গল কামনা করা হয়।

বনভান্তের মূর্তি নির্মাণকারী বিভাষ চাকমা জানান, দীর্ঘ ২৪ ফুট উঁচু অরহৎ বনভান্তের মূর্তিটি নির্মাণে প্রায় ৭ মাস সময় লেগেছে এবং প্রায় ২৫ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। বনভান্তের মূর্তির পাশে নির্মিত হয়েছে সুউচ্চ গৌতম বুদ্ধের মূর্তি। দৃষ্টিনন্দন এই মূর্তিগুলো দেখতে পূণ্যার্থীদের পাশাপাশি ভীড় করেন পর্যটকরাও।