সমন্বয়ের অভাবে রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটছে না!

॥ আলমগীর মানিক ॥

অপার পর্যটন সম্ভাবনাময় পার্বত্য রাঙামাটি জেলায় এখনো পর্যন্ত শিল্প হিসেবে গড়ে উঠেনি অত্রাঞ্চলের পর্যটন খাত। প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয্যকে পুঁজি করে এ এলাকায় পর্যটন শিল্প বিকাশের যথেষ্ট সুযোগ থাকা সত্বেও সুষ্ঠ পরিকল্পনা উদ্যোক্তার অভাব এবং সরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের সমন্বয়হীনতায় পার্বত্যাঞ্চলের মাতৃজেলা রাঙামাটি অন্য দুই পার্বত্য জেলা থেকে দারুনভাবে পিছিয়ে রয়েছে। এই বন্ধাত্ব কাটাতে সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়ার উপর গুরত্বারোপ করলেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধি পর্যটন সেক্টরে কাজ করা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা।

বৃহস্পতিবার রাঙামাটি জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক কর্মশালায় অংশ নিয়ে পর্যটন সংশ্লিষ্ট্যরা এ মত ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সহযোগিতায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ এই কর্মশালার আয়োজন করে। কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম শফি কামালের সঞ্চালনায় উক্ত কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ট্যুরিজম বোর্ডের সহকারী পরিচালক ফয়জুল কবির রহিম, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, রাঙামাটি পর্যটন কর্পোরেশন এর ম্যানেজার সৃজন বিকাশ বড়–য়া, দৈনিক রাঙামাটি’র সম্পাদক আনোয়ার আল হক, ট্যুরিষ্ট পুলিশ পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম, রূপসী বাংলা ট্যুরিজমের পরিচালক সাইফুল ইসলাম, পরিবহন মালিক সমিতির নেতা মঈন উদ্দিন সেলিম প্রমুখ। কর্মশালায় রাঙামাটির পর্যটন সেক্টরে নিয়োজিত বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যবসায়ি, চেম্বার অব কমার্স, বাস মালিক সমিতি, হোটেল মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।