ব্রেকিং নিউজ

রাঙামাটিতে বিমানবন্দর স্থাপনের সম্ভাবনা নাকচ করলেন প্রধানমন্ত্রী! (ভিডিও সহ)

॥ সৌরভ দে ॥

গত বেশ কয়েকদিন ধরেই রাঙামাটিবাসীর অন্যতম আকর্ষনীয় টপিক ছিল তিন পার্বত্য চট্টগ্রামের মধ্যে রাঙামাটির কাউখালীতে হতে যাচ্ছে বিমানবন্দর। রাঙ্গামাটির বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালসহ প্রিন্ট মিডিয়াতে বেশ ফলাও করে প্রচার করা হয় সম্ভাব্য বিমানবন্দরের এই খবর। সীমিত নৌ-পথ ও রেলপথ হতে বঞ্চিত পর্যটন নগরী রাঙ্গামাটির জন্যে এই বিমানবন্দর ছিল আশার আলো কিন্তু স্বপ্ন আর বাস্তবতার মধ্যে রয়েছে অনেক বড় ফারাক। সেই ফারাকটিই আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার ৬ ফেব্রুয়ারী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে একযোগে ছয়টি বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং নয়টি গ্রিড উপকেন্দ্র উদ্বোধনকালে রাঙামাটির সকল স্তরের জনসাধারণসহ রাঙামাটির সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের সাথে জেলার বিভিন্ন সম্ভাব্য উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সময় ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে আগত বিভিন্ন পর্যটকদের যাতায়াত সমস্যার কথা তুলে ধরে রাঙামাটিতে স্বল্প পরিসরে একটি বিমানবন্দর নির্মানের প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন এমপি দীপংকর তালুকদার। প্রতি উত্তরে প্রধানমন্ত্রী জানান, পাহাড়ের মাটি বিমানবন্দরের জন্যে উপযুক্ত নয়। তাই পাহাড়ে বিমানবন্দর সম্ভব নয়। তবে পর্যটকদের যাতায়াত সুবিধার্থে তিনি রাস্তাঘাট উন্নয়নের উপর জোর দেন।

কিছুটা হতাশ হলেও রাঙামাটির বিজ্ঞমহল প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের সাথে একমত হয়েছেন। তাদের মতে, গত দুই বর্ষাকালে রাঙামাটিতে স্মরণকালের অন্যতম ভয়ংকর ভূমিধ্বস হয়েছে যাতে প্রাণ হারিয়েছে কয়েকশ মানুষ এবং বাস্তুচ্যুত হয়েছে অনেকেই। যেসব পাহাড়ি ভূমিতে কোন জনবসতি ছিল না সেখানেও হয়েছে ব্যাপক ধ্বস। এইরকম নরম মাটিতে বিমানবন্দর স্থাপন কতটা সমীচীন তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। বিমানবন্দরের রানওয়ে তৈরীর জন্যে মাটির যে গুনাগুণ থাকা প্রয়োজন তা পাহাড়ি জেলা রাঙামাটির মাটিতে অনুপস্থিত বলে মতামত দিয়েছেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি বিডা’র নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলামের কাছে চিঠি পাঠিয়ে রাঙামাটিতে বিমানবন্দর স্থাপনের ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়ার অনুরোধ করেন। এর প্রেক্ষিতে ১৩ জানুয়ারি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলীকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন বোর্ড’র (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলাম রাঙামাটিতে বিমানবন্দর স্থাপনের উদ্যোগ নিতে একটি চিঠি দেন। উক্ত চিঠিতে পার্বত্য অঞ্চলের পর্যটন খাতকে শক্তিশালী করতে বিমানবন্দরের গুরুত্ব তুলে ধরেন তিনি।