নিজ বাহিনীর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন রাঙামাটির পুলিশ সুপার

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

অসীম সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ অবদান, দায়িত্বশীল পেশাদারিত্ব, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও সেবামূলক কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পদক ‘প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল-সেবা’ (পিপিএম-সেবা) পাওয়ায় রাঙ্গামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবীরকে উষ্ণ সংবর্ধনা প্রদান করে রাঙামাটি পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাগণ। ১১ ফেব্রুয়ারী সোমবার রাঙামাটি পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তাগণ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

এসময় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জনাব মোঃ ছুফি উল্লাহ, জেলা বিশেষ শাখার পক্ষ থেকে ডিআইও-১ এ কে নজিবুল ইসলাম, কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক জনাব মোহাম্মদ ইসরাফিল মজুমদার, কোতয়ালী থানার পক্ষ থেকে অফিসার ইনচার্জ জনাব মীর জাহিদুল হক রনি, কাপ্তাই থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব সৈয়দ মোহাম্মদ নূর ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ নুরুল আলম, ট্রাফিক বিভাগ এর পক্ষ থেকে টিআই জনাব মো: ইসমাইল, রির্জাভ অফিস এর পক্ষ থেকে আরওআই আশীষ কুমার পাল, আরআই পুলিশ লাইন্স এর পক্ষ থেকে জনাব মো: সাহাব উদ্দিন দেলোয়ার, পুলিশ অফিসের সিভিল কর্মকর্তা সহ জেলা পুলিশের উর্ধতন অফিসারবৃন্দ।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে পুলিশ বাহিনীর সদস্যগণের অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ৪০ জন পুলিশ সদস্যকে “বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম)”, ৬২ জনকে “রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক (পিপিএম)” এবং গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য ১০৪ জন পুলিশ সদস্যকে “বাংলাদেশ পুলিশ পদক(বিপিএম)-সেবা” এবং ১৪৩ জনকে “রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক(পিপিএম)-সেবা” প্রদান করা হয়। এসময় নিজের দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততার জন্য ১৪৩ জন পুলিশ সদস্যের সাথে রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবীরও ভূষিত হন ‘প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল-সেবা’ (পিপিএম-সেবা) পদকে।