ব্রেকিং নিউজ

জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে শিক্ষা সামগ্রী পেল দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীরা

॥ মাসুদ পারভেজ ॥

রাঙামাটির ঐতিহ্যবাহি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শহীদ আব্দুল আলী একাডেমীর দরিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ। বুধবার দুপুরে দুর্নীতি দমন কমিশনের উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক। এসময় বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি হাজী মোঃ মুছা মাতব্বরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন দুদকের উপ-পরিচালক মোঃ নাসির উদ্দিন ও প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম চৌধুরীসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘স্কুলে শুধু পড়ালেখা শেখায় না। নিজের চরিত্র গঠন, স্বাস্থ্য গঠন, নিজেদের ভালো মানুষ হওয়ার প্রেরণা শেখায়। মানসম্মত লেখাপড়া নিশ্চিত করতে হবে। বিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক আয়োজনে অংশগ্রহন করবে। আরেকটি বিষয় মনে রাখতে হবে সব বিষয়ে ভাল নাম্বার পেলাম কিন্তু মা-বাবাকে শ্রদ্ধা করতে শিখলাম না, দেশ গঠন করা বুঝলাম না- এটা যেন না ঘটে।

প্রধান অতিথি বিদ্যালয়ের মাল্টিমিডিয়া শ্রেণী পরিদর্শনকালে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সের আগত ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানান এবং তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের একটা কথা মনে রাখতে হবে প্রত্যেকটি কাজেই সাফল্য পাওয়ার পাওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যাবসায়ের মন মানসিকতা থাকতে হবে। অনেকে আছে কোর্সের শেষে ভাতার আশায় কোর্স করে তারা কখনো একজন সফল ডিজাইনার হতে পারবেনা। অনুষ্ঠানের বিদায়কালে একজন মেধাবী শিক্ষার্থীর বেতন মওকুফের জন্য আবেদন করলে তিনি তার সকল দ্বায়-ভার নিজেই বহন করার দায়িত্ব নেন।

অনুষ্ঠানের শেষে উক্ত বিদ্যালয়ের নবগঠিত “সততা ষ্টোর” পরিদর্শনকালে দোকানে কোনো বিক্রেতা না দেখে তিনি অভিভূত হন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেলা প্রশাসককে বলেন, এই দোকানটি শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের সততা উপলব্ধি করার জন্য খোলা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা তাদের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় উপকরন (খাতা, কলম, স্কেল, চানাচুর, চিপ্স) এইখান থেকে সংগ্রহ করতে পারবে। চমকপ্রদ ব্যাপার হলো এই দোকাটিতে কোনো বিক্রেতা থাকবেনা, শিক্ষার্থীরা নিজেরাই মূল্য দেখে তা পরিশোধ করবে। এসময় জেলা প্রশাসক আগ্রহী হয়ে নিজেই দুইটি চিপ্স কিনেন সততা ষ্টোর থেকে।