ব্রেকিং নিউজ

নারী সাংসদের অসাংবিধানিক বক্তব্যের ইস্যুতে পাহাড়ে বসন্ত আন্দোলন!

॥ আল-মামুন – খাগড়াছড়ি ॥

পার্বত্যাঞ্চলের সংরক্ষিত আসনের এমপি বাসন্তী চাকমা সংসদে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও অসাংবিধানিক বক্তব্য প্রকাশের পর তার অপসারণের দাবীতে মাঠে নেমেছে পার্বত্যবাসী। বাসন্তী চাকমার রাষ্ট্রদোহী বক্তব্যের মাধ্যমে সেনাবাহিনী ও বাঙালিদের নিয়ে মিথ্যাচার করে বিশেষ মহলের এজেন্ডা বাস্তবায়নের কাজ করতে নেমেছে বলে অভিযোগ পাহাড়বাসী।

বাসন্তী চাকমাকে পাহাড়ের বিষফোঁড়া দাবী করে জাতীয় সংসদ সদস্য পদ থেকে অপসারনসহ আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কারের দাবী করেছে সচেতন মহলসহ পাহাড়ের সাধারণ মানুষ। একই দাবীতে গত কয়েকদিন ধরে পাহাড়ে ধারাবাহিক ভাবে বিভিন্ন কর্মসূচী পালিত হচ্ছে।

আন্দোলনের অংশ হিসেবে সোমবার খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় সচেতন মাটিরাঙ্গাবাসীর ব্যানারে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে পাহাড়ে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়ানোর অপচেষ্ঠাকারী বাসন্তী চাকমাকে শান্তির জনপদে অশান্তির দাবানল জ্বালানোর পায়তারায় লিপ্ত বলে মন্তব্য করে দ্রুত সংসদ সদস্য পদ থেকে তার অপসারণ দাবী করা হয়।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র শামছুল হক‘র সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা-সুবাস চাকমা, হিরনজয় ত্রিপুরা, আলাউদ্দিন লিটন, পার্বত্য অধিকার ফোরামের সভাপতি মো: মাঈন উদ্দিন,বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো: আবদুল মজিদ, সলেন চাকমা, মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাও. মো. হারুনুর রশিদ প্রমুখ।

এর আগে মাটিরাঙ্গা উপজেলার শান্তিপ্রিয় পাহাড়ী-বাঙ্গালি জনগোষ্ঠি ‘উগ্র-সাম্প্রদায়িক বাসন্তী চাকমার শাস্তি চাই’ ‘সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার বন্ধ কর, করতে হবে’ ও ‘আওয়ামী লীগ থেকে বাসন্তী চাকমা বহিস্কার কর, করতে হবে’ সহ বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত ব্যানার-ফেস্টুনসহ মিছিল সহকারে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেয়।

বাসন্তী চাকমা আওয়ামী লীগের ভাবমুর্তি ক্ষুন্নর অভিযোগে মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক বাসন্তী চাকমাকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কারের দাবী জানিয়ে বাসন্তী চাকমা ক্ষমা না চাইলে তাকে পাহাড়ে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হবে বলে জানান। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে বিক্ষুব্ধ জনতা উগ্র সাম্প্রদায়িক বাসন্তী চাকমার কুশপুত্তলিকা দাহ করে উল্লাস করে। এসময় শ্লোগানে শ্লোগানে মুখর হয়ে উঠে মাটিরাঙ্গার জনপদ।

প্রসঙ্গত, ২৬ ফেব্রুয়ারি মহান জাতীয় সংসদে নির্ধারিত বক্তব্য প্রদানকালে দেশদ্রোহী শান্তিবাহিনীকে নিজের ভাই উল্লেখ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাঙ্গালীদের বহিরাগত উল্লেখ করে মিথ্যাচার করেন এমপি বাসন্তী চাকমা।