যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণ ও রোগী সনাক্তকরণে সাংস্কৃতিক কর্মীদের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

যক্ষ্মা শুধু একটি রোগ নয়, এটি একটি সামাজিক সমস্যাও। তাই পার্বত্যাঞ্চলে রোগটি নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূলে প্রয়োজন সম্মিলিত সামাজিক উদ্যোগ। এই রোগ শুধু জীবাণুর কারণেই হয় না। দারিদ্র্য, অপুষ্টি, ঘন বসতি, অজ্ঞতা, অসচেতনতাসহ বিভিন্ন উপসর্গ এর সঙ্গে জড়িত। শহরে ও দূর্গম এলাকার অনেক পরিবার এখনও যক্ষ্মা রোগ শনাক্তের বাইরে থেকে যাচ্ছে।

বুধবার সকালে রাঙ্গামাটি ডায়াবেটিক সমিতির হাসপাতাল সম্মেলন কক্ষে যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণ ও যক্ষ্মা রোগী সনাক্তকরণে সাংস্কৃতিক কর্মীদের করনীয় শীর্ষক জেলা মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি (নাটাব) আয়োজনে নাটাব রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি এ কে এম মকছুদ আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি জেলা সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদার, সহকারী সিভিল সার্জন নিহার রঞ্জন নন্দী, রাঙ্গামাটি বক্ষব্যাধি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. সুশোভন দেওয়ান ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সুর নিকেতনের প্রতিষ্ঠাতা মনোজ বাহাদুর।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, সমাজে প্রতিটি মানুষ যদি সচেতন হয় তা হলে যক্ষ্মা নির্মুল কোন বিষয় নয়। আর সরকারের একার পক্ষে যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল সম্ভব নয়। সামাজিক দায়িত্বের জায়গা থেকে সরকারের পাশাপাশি এনজিও, নাগরিক সমাজ, সাংস্কৃতিককর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণের মাধ্যমে এ রোগ নিয়ন্ত্রণে কর্মপরিকল্পনা নিতে হবে। সবার অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করতে পারলে যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণে সাফল্য আসবে।