ব্রেকিং নিউজ

রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে নবীন বরণ অনুষ্ঠিত

॥ প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥

১২ মার্চ রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রাবিপ্রবি) এর ১ম বর্ষ স্নাতক সম্মান শ্রেণিতে ভর্তিকৃত নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০:১৫ ঘটিকায় শাহ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠের মাধ্যমে নবীন বরণ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

এরপর কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ও ম্যানেজমেন্ট বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা নবাগত শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে এবং রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক জনাব সজীব ত্রিপুরা।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বক্তব্যের শুরুতে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং বাংলাদেশের ইতিহাসে মার্চ মাসের ঐতিহাসিক গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভের সুযোগ পাওয়ায় নবীন শিক্ষার্থীদের তিনি অভিনন্দন জানান।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন. শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। অজ্ঞানতা ও অশিক্ষা থেকে মুক্ত হতে হবে। শিক্ষার্থীদেরকে স্বপ্ন দেখতে হবে এবং সেইসব স্বপ্নকে বাস্তবায়নের জন্য অবশ্যই পড়াশুনা করতে হবে।
নৈরাশ্য ও নেতিবাচকতাকে চিরতরে দূর করে নবীন শিক্ষার্থীদেরকে ইতিবাচক চিন্তা ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে জীবনের লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যেতে বলেন উপাচার্য।

তিনি শিক্ষার্থীদের উজ্জ্বল ভবিষ্যত ও দীর্ঘায়ু কামনা করে পাঠ্যবইয়ের পাশাপাশি অন্যান্য বই পড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে নিয়োজিত হওয়ার কথা বলেন এবং পড়াশুনা শেষে সমাজে প্রতিষ্ঠা লাভ করে দেশ ও জাতি গঠনে শিক্ষার্থীদের ভূমিকা রাখার কথা বলেন।

এছাড়াও নবীন বরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) জনাব অঞ্জন কুমার চাকমা এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক (হিসাব) জনাব মোঃ মাসুদুর রহমান, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব রণজ্যোতি চাকমা, ম্যানেজমেন্ট বিভাগে চেয়ারম্যান জনাব সপ্তর্ষি চাকমা ও প্রক্টর জনাব জুয়েল সিকদার। অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।