ব্রেকিং নিউজ

মানিকছড়ির কর্ণধার হলেন জয়নাল বাবুল ডলি

॥ মানিকছড়ি প্রতিনিধি ॥

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে মানিকছড়ি উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে। জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন ডলি চৌধুরানী এবং নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় বিনাভোটে চেয়ারম্যান হলেন মো. জয়নাল আবেদীন ও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বাবুল উপজেলার পরবর্তী কর্ণধার হলেন।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ ঘোষণায় দ্বিতীয় ধাপে দেশব্যাপি ১১৬ উপজেলার মধ্যে খাগড়াছড়ির জেলার ৮ উপজেলায় ভোট অনুষ্টিত হয়েছে ১৮ মার্চ। গেল ১৮ ফেব্রুয়ারী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে মানিকছড়িতে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. জয়নাল আবেদীন এবং বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো.তাজুল ইসলাম বাবুল ব্যতিত কেউই উক্ত পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি! ফলে অনায়াসে চেয়ারম্যান পদে মো. জয়নাল আবেদীন ও ভাইস চেয়ারম্যান পুুরুষ পদে মো.তাজুল ইসলাম বাবুল বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। আর মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়পত্র জমা দেন ৪জন। বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার,সাবেক সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ডলি চৌধুরাণী,শিউলি আক্তার এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রয়াত খান মকুবল আহম্মদদের কন্যা নূরজাহান আফরিন লাকি।

ফলে ১৮ মার্চ অনুষ্টিত নির্বাচনে তাঁরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন একে অপরের সাথে। সারা দিন ভোট শেষে দেখা গেছে, আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী সাবেক ইউপি সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ডলি চৌধুরাণী (কলস) ভোট পেয়েছেন ১০ হাজার ৯শত ১৩ ভোট। তাঁর নিকটতম নূরজাহান আফরিন লাকি(হাঁস) পেয়েছেন ৩ হাজার ৪০ ভোট। তৃতীয় অবস্থানে শিউলি আক্তার (প্রজাপতি) পেয়েছেন ১ হাজার ৮শত ৭৪ ভোট। চতুর্থ অবস্থানে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার(ফুটবল) পেয়েছেন ১হাজার ১শত ১৮ ভোট। মোট কাস্টিং ভোট ১৭ হাজার ৮২ ভোট (৩৯.২৪%)। বাতিল ভোট ১শত ৩৩ ভোট।
মোট ভোটার ৪৩ হাজার ৫শত ২৯। এর মধ্যে পুরুষ ২১ হাজার ৮শত ২১ ভোট এবং মহিলা ২১ হাজার ৭শত ১২ ভোট।

সন্ধ্যা ৬টায় সহকারি রিটার্ণি অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার(অ.দা)বিভীষণ কান্তি দাশ বেসরকারিভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এ সময় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রণি কুমার দে,অফিসার ইনর্চাজ মুহাম্মদ রশীদ উপস্থিত ছিলেন।
এতে আগামী দিনে উপজেলার কর্ণধার হলেন, চেয়ারম্যান মো.জয়নাল আবেদীন,ভাইস চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বাবুল ও ডলি চৌধুরাণী। অচিরেই নির্বাচন কমিশন তাঁদেরকে সরকারীভাবে বিজয়ী ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশের পর বিজয়ীরা শপথ গ্রহন করবেন এবং জনপ্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহন করবেন।