রাঙ্গামাটিতে দৈনিক আমাদের সময়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

‘পার্বত্য চট্টগ্রাম সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা দূর করতে ভূমিকা রাখবে দৈনিক আমাদের সময়। একইসাথে পাহাড়ের সত্য ও সঠিক প্রতিচ্ছবি প্রকাশ করে জাতির সামনে নতুন করে নিজেকে পরিচিত করবে’। রাঙামাটিতে দৈনিকটির ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এমন প্রত্যাশার কথা জানিয়েছেন অতিথিরা।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারোটায় শহরের রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থেকে কেক কাটেন দৈনিক গিরিদর্পণ’র সম্পাদক একেএম মকছুদ আহমদ।
বক্তারা আমাদের সময়’র সমৃদ্ধি কামনা করে বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের জীবনধারা, সংস্কৃতি, উন্নয়ন, সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরবে দৈনিক আমাদের সময়’।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক রাঙামাটি’র সম্পাদক আনোয়ার আল হক। বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও যমুনা টেলিভিশনের রাঙামাটি প্রতিনিধি ফজলুর রহমান রাজন। রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি সুশীল প্রসাদ চাকমার সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন দৈনিক আমাদের সময়’র রাঙামাটি প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান জুয়েল।

দৈনিক গিরিদর্পণ’র সম্পাদক একেএম মকছুদ আহমদ বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের যেটুকু উন্নয়ন ও শান্তি এসেছে তা পাহাড়ের সাংবাদিকদের কারণে। সাংবাদিকদের লেখনীতে গুরুত্ব অনুধাবন করে পাহাড়ের শান্তি প্রতিষ্ঠায় সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এ সাফল্যের অংশীদার পাহাড়ের সাংবাদিকরা’।

দৈনিক রাঙামাটি’র সম্পাদক আনোয়ার আল হক বলেন, ‘সাংবাদিকদের বাহ্যিক চাকচিক্য দেখে অনেক তরুণ সাংবাদিকতায় পেশায় আসেন। কিন্তু আর্থিক নিরাপত্তা না থাকায় তারা সাংবাদিকতা ছেড়ে অন্য পেশায় ফিরে যান। তবে নানান চড়ই উৎড়াই পার করে যারাই পেশাকে ধরে রেখেছেন তারা আজ সম্মানের আসনে আছেন’।

রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা বলেন, ‘সাংবাদিকতা পেশা আজ আর ঠুনকো নয়। সংবাদ মাধ্যম আজ শিল্প হিসেবে দেশে স্বীকৃতি পেয়েছে। কিন্তু সাংবাদিকদের জীবনমান সেভাবে উন্নত হয়নি। সাংবাদিকরা জাতিকে পথ দেখান অথচ অনেক সাংবাদিকই আর্থিক নিরাপত্তাহীনতার অন্ধকারেই সারাজীবন পার করেন। তাই আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা গেলে জাতি অনেক মেধাবী সাংবাদিক পাবে’।

রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান রাজন বলেন, ‘দেশের অন্যতম শীর্ষ দৈনিক আমাদের সময় পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রতি বিশেষ নজর রাখবে। পার্বত্য চট্টগ্রামের জীবনধারা, সংস্কৃতি, উন্নয়ন, সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরবে’।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশ’র প্রতিনিধি এম কামাল উদ্দিন, একুশে টেলিভিশন ও দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার সত্রং চাকমা, রাঙামাটি সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও গাজী টেলিভিশনের রাঙামাটি প্রতিনিধি মিল্টন বাহাদুর, ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের রাঙামাটি প্রতিনিধি হিমেল চাকমা, রাঙামাটি জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও আলোকিত বাংলাদেশের জেলা প্রতিনিধি আব্দুল হান্নান, একাত্তর টেলিভিশনের রাঙামাটি প্রতিনিধি উসিংছা রাখাইন কায়েস, বণিকবার্তার রাঙামাটি প্রতিনিধি বিহারী চাকমা ও বিজনেস বাংলাদেশের রাঙামাটি প্রতিনিধি সুপ্রিয় চাকমা শুভ প্রমুখ।