রাঙামাটির বৌদ্ধ মন্দিরগুলোতে আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করলেন সাবেক এমপি চিনু

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

বর্তমান সরকার অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী বলেই সারাদেশের মসজিদ, মন্দির, কেয়াং থেকে শুরু করে সকল উপাসনালয়গুলোতে অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি আর্থিক অনুদান প্রদান অব্যাহত রেখেছে বলে মন্তব্য করে পার্বত্যাঞ্চলের সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি ফিরোজা বেগম চিনু বলেছেন এতে করে মানুষের মাঝে ধর্মীয় মূল্যবোধ জাগ্রত হয় এবং হিংসা হানাহানি থেকে মানুষ নিজেদের দূরে রেখে ভাতৃত্ববোধ সৃষ্টির মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে বসবাস করতে পারে।

একটি গণতান্ত্রিক দেশের সকল জনসাধারণ একই কাতারে বাস করবে এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে সকলের অধিকার সমুন্নত রাখতে এই প্রত্যাশাই আমরা করি। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সরকার ধর্মীয় মূল্যবোধকে জাগ্রত করার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার রাঙামাটির ভেদভেদীস্থ নিজ বাসভবনে জেলার বিভিন্ন স্থানের বৌদ্ধ মন্দিরগুলোতে সরকারের পক্ষ থেকে প্রদত্ত আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণকালে এসব কথা বলেছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ফিরোজা বেগম চিনু।

যেসব মন্দিরগুলো আর্থিক সহায়তা পেয়েছে সেগুলো হলো- মৈত্রী বিহারকে ৫০হাজার টাকা, সীবলী বন বিহারকে ৫০হাজার টাকা, বুদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহারকে ৪০হাজার টাকা, পারমী বৌদ্ধ বিহারকে ৩০হাজার টাকা এবং পশ্চিম হাতীমারা শান্তিকামী বৌদ্ধ বিহারকে ৩০হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এসময় তার ব্যক্তিগত সহকারী মো. সালাউদ্দীন সুমনসহ মন্দির কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।