ব্রেকিং নিউজ

ইউপিডিএফ’র হয়ে চাঁদা আদায়কালে ৬ লক্ষাধিক টাকাসহ কাঠ ব্যবসায়ি আটক

॥ আলমগীর মানিক ॥

পাহাড়ে সশস্ত্র কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকা আঞ্চলিকদলীয় সন্ত্রাসীদের সোর্স হিসেবে কাজ করে তাদের পক্ষে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করার সময় রাঙামাটি শহর থেকে নগদ ৬ লক্ষাধিক টাকাসহ নান্নু মিয়া নামে এক কাঠ ব্যবসায়িকে আটক করা হয়েছে। রাঙামাটি কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহেদুল হক রনি আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছে আটককৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভয় ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আটককৃত নান্নু মিয়া কুতুকছড়ির বাসিন্দা।

এই মামলার আইও থানার এসআই মাহির উদ্দিন জানিয়েছেন, আটককৃত ব্যক্তিসহ চারজনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ৬/৭ জনকে আসামী করে চাঁদা দাবি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে কোতয়ালী থানায় দণ্ড বিধি ৩৮৫/৩৮৬/৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নাম্বার-১৮, তারিখ: ১৯/০৪/২০১৯ইং।

এই মামলায় গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে রাঙামাটিস্থ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে উপস্থাপনপূর্বক পাঁচদিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়েছে। আদালত ২১শে এপ্রিল রিমান্ড শুনানীর আদেশ প্রদান করে আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেছেন।

এদিকে মামলার বাদী কোতয়ালী থানার এসআই নেছার আহাম্মদ জানিয়েছেন, আকতকৃত নান্নু মিয়া পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সংগঠন ইউপিডিএফ’র সশস্ত্র গ্র“পের নেতা অর্কিড চাকমার নামে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে আসছে দীর্ঘদিন ধরেই। গতকাল একইভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায় করছে এমন তথ্যপেয়ে যৌথবাহিনীর একটি টিম বনরূপাস্থ ফরেষ্ট কলোনী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করেছে।

এসময় তার কাছ থেকে নগদ ৬ লাখ ১৬ হাজার ৮৫০টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। যৌথবাহিনীর কাছে তথ্য ছিলো যে, উক্ত টাকাগুলো চাঁদাবাজির মাধ্যমে সংগ্রহ করা হয়েছে এবং এসব চাঁদাবাজির অর্থ বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেন করতো নান্নু মিয়া ও তার সঙ্গীরা।

আটকের সময় নান্নু মিয়ার কাছ থেকে তিনটি বেসরকারি ব্যাংকের এটিএম কার্ডসহ মোটর সাইকেল ও অন্যান্য কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এই মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আটককৃত নান্নু মিয়া পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সংগঠন ইউপিডিএফ’র অন্যতম প্রধান কালেক্টর অর্কিড চাকমার হয়ে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে নিয়মিতভাবেই চাঁদা আদায় করে আসছে।