ব্রেকিং নিউজ

মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধূকে মারধর, শ্লীলতাহানীসহ র্স্বনালঙ্ককার ও নগদ টাকা লুটপাট!

॥ ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥

ঝিনাইদহের কুমড়া বাড়ীয়া ইউনিয়নের ডেফল বাড়ীয়ায় কুপ্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা পুত্রবধু প্রবাসীর স্ত্রীকে মারধর শ্লীলতাহানী,র্স্বনালঙ্ককার ও নগদ টাকা লুটপাট করলেন ইউপি মেম্বাররা। ডেফল বাড়ী ঙ্ক্রামের কলিম উদ্দিন মেম্বার, ধোপাবিলা গ্রামের আমজাদ মেম্বার ও জামাল হোসেন মেম্বার এবং তাদের দোসরদের লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে মুক্তিযোদ্ধা পুত্রবধু প্রবাসীর স্ত্রীর উপর। তাদের কুপ্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের গৃহবধু লাকি খাতুনকে প্রকাশ্যে বেদম মারপিট, শ্লীলতাহানী, লুটপাট করার অভিযোগ উঠেছে কুমড়াবাড়ীয়া ইউনিয়নের তিন মেম্বার সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে।

মামলার অভিযোগ সুত্রে ও সরেজমিনে ডেফল বাড়ীয়া গ্রামে গিয়ে জানা গেছে, গৃহবধু লাকি খাতুন এর স্বামী রবিউল ইসলাম প্রায় বার বছর ধরে দুবাই থাকেন, বাড়ীতে স্ত্রী এবং দুই পুত্র সন্তান থাকে। ডেফল বাড়ীয়া গ্রামের চৌরাস্তার মোড়ে স্ত্রী লাকী খাতুন এর “কসমেটিক কর্ণার” নামে একটি ষ্টেশনারী দোকান করে ব্যাবসা বাণিজ্য করেন। তার দুই পুত্র সন্তান শহরের পাগলা কানাইস্থ এ জে ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে লেখাপড়া করেন। লাকী খাতুন নিজে সুন্দরী এবং স্বামী বিদেশে থাকার কারণে ইউপি মেম্বার কলিম উদ্দিন, আমজাদ হোসেন, জামাল হোসেন এর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে তার উপর। মেম্বাররা তাকে কুপ্রস্তাব দেয় এবং উত্ত্যাক্ত করে ও বাকিতে মালামাল না দিলে, খুন জখমের ভয়ভিতি হুমকি দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ শে এপ্রিল দুপুর বার টার সময় তিন মেম্বার ও তাদের দোসর সুজাত, রাসেল, সেকেন্দার সহ মোট ছয়জন র্পুব আক্রশে গৃহবধু লাকী খাতুনকে দোকানের ভিতর থেকে চুলের মুঠো ধরে টেনে হেছড়ে বের করে দোকানের সামনে রাস্তার উপরে লাঠিসোটা দিয়ে মারধর করে, সে সময় তার পুত্র জাকির হোসেন মাকে রক্ষা করতে গেলে তাকেও লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। আমজাদ মেম্বার তার পরনের কাপড় চোপড় টানা হেছড়া করে শ্লীলতাহানী ঘটায়। জামাল নামক সন্ত্রাসী মেম্বার তার গলা থেকে বার আনা ওজনের একটি সোনর চেন ছিড়ে নেয়। সুজাত নামের আর এক সন্ত্রাসী দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ২৫ হাজার টাকা লুট করে নেয়।

এসব ঘটনা লাকী খাতুন ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি লিখিত এজাহার করেছেন। এ বিষয়ে এস,আই পলাশ জানান, তিনি একটি এজাহারের কপি হাতে পেয়েছেন। আজ (১লা মে বুধবার) বিকেলে ঘটনাস্থলে যাবেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খাঁন বলেন নিয়োমিত মামলা হয়েছে। তিনি আরও বলেন অভিযান চলছে, ২৪ ঘন্টার মধ্যে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করবো আশা করছি। তিন জন মেম্বারই এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন।