বান্দরবানে লিচুর বাম্পার ফলনঃ আশানুরুপ দাম পাচ্ছে না চাষী!

॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

বান্দরবানের পাহাড়ে চলতি মৌসুমে বিভিন্ন জাতের লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। জেলার ৭টি উপজেলায় পাহাড়ের পাদদেশে এখন থোকায় থোকায় গাছ ভর্তি বাহারি লিচু সবার মন কাড়ছে। চাষীরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন লিচু আহরণ ও বাজারজাত করনে। তবে ফলন ভাল হলেও আশানুরুপ দাম না পাওয়ায় হতাশা দেখা দিয়েছে স্থানীয় চাষী ও ব্যবসায়ীদের মাঝে। ভাল ফলন হলেও আশানুরুপ দাম না পাওয়ার দাবী কৃষকদের । স্থানীয় বাজারে দেশীয় জাতের ১০০ লিচু বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ১০০ টাকায়।

কৃষি বিভাগ জানায় চলতি মৌসুমে বান্দরবান জেলায় ১ হাজার ২০৩ হেক্টর পাহাড়ি জমিতে বোম্বাই চায়না টু চায়না থ্রি এবং দেশিজাতের লিচুর চাষ হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৫ হাজার ২শ ২৮ মেট্রিক টন। আবহাওয়া ভাল থাকায় এবার লিচুর ফলন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করছেন কৃষি কর্মকর্তারা।

কৃষি বিভাগের মতে জেলায় প্রতি বছর লিচুসহ বিভিন্ন ফলজ বাগানের আবাদ বাড়ছে। পাহাড়ের মাটি ও জলবায়ু লিচু উৎপাদনের জন্য উপযোগী হওয়ায় চাষীরাও আগ্রহী হয়ে উঠছেন যার কারনে এবার সুস্বাদু ফল লিচুর ফলন গত বছরের চেয়ে অনেক ভাল হয়েছে। চেমি ডলু ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা খোরশিদা বেগম বলেন কৃষি অধিদপ্তর হতে কৃষি প্রযুক্তি লিচুর বাগানে সময়মত মরা ডালপালা অপসারন সময় মত সার প্রদান সঠিক সময়ে সঠিক মাত্রায় বালাইনাশক স্প্রে ও উন্নত জাতের চারা ও পরামর্শ প্রদান করায় লিচুর ফলন ভাল হয়েছে। তবে মাটি ও পরিবেশ অনুকুলে থাকায় বান্দরবানে প্রতিবছরই লিচুর আবাদ বাড়ছে।তাদের মতে,বাগানে বাগানে গিয়ে চাষিদের পরামর্শ দেওয়ার কারনে প্রতি বছর লিচুসহ ফলজ বাগানের প্রতি চাষীদের আগ্রহ বাড়ছে।

কিন্তু ফলন ভাল হলেও এবছর অনাবৃষ্টি, খরা এবং তীব্র তাপদাহের কারণে পাহাড়ে শতশত বাগানের লিচু ও এর খোসা পুড়ে ফেটে এবং কালচে হয়ে বাজারে বিক্রীর আগেই বাগানে ফল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আর বেশী ফলন হওয়ায় বাজারে লিচুর যোগান বেশী থাকায় ভাল দাম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে চাষীরা স্থানীয় লিচু চাষি চাইউগ্য মার্মা বলেন, চলতি মৌসুমে লিচু বিক্রি করে লাভ তো দূরের কথা পুঁজি উঠবে কিনা,এই নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছি।কারণ লিচুর দাম তেমন পাওয়া যাচ্ছেনা। একশত লিচু বিক্রি করতে হচ্ছে ৬০/৭০ টাকা। কিন্তু চাষ করতে খরচ হয়েছে দিগুন। সেই হিসেবে লাভের মুখ দেখা যাচ্ছেনা। অপর চাষী উপশৈ থুই মার্মা জানান বাগানের বোম্বাই ও চায়না থ্রি জাতের লিচু এখনও কাঁচা। কিন্তু এ সময়ে লিচু ফেটে চির ধরেছে,খোসায় কালো দাগ পড়ে ফেটে যাচ্ছে, লিচুর আকারও ছোট, গাছ থেকে প্রতিদিনই ঝরে পড়ছে লিচু। প্রত্যেকটি বাগানে যে হারে লিচু ফেটে যাচ্ছে আর ঝরে পড়ছে এতে ফলন ভাল হলেও লাভের মুখ দেখার সম্ভবনা নেই।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বান্দরবান সদর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো: ওমর ফারুক বলেন, এবার পাবর্ত্য অঞ্চলে লিচুর খুবই ভাল ফলন হয়েছে। দাম ও মোটামোটি ভাল পাচ্ছে কৃষকরা। তবে এবছর লীচুর ফলন ভালো হলেও অনাবৃষ্টি ও খরা এবং অতি উচ্চতাপমাত্রর কারণে বাগানের লিচু ঝরে যাচ্ছে ও ফেটে যাচ্ছে। এসময় লীচু গাছের পাতায় স্প্রে এবং গাছের গোড়ায় পানি দেয়ার জন্য পরামর্শ দেন তিনি।