ব্রেকিং নিউজ

পাহাড়ের বাঙ্গালীরা তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিক হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে : পিবিসিপি

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত বাঙ্গালী জনগোষ্ঠি নানামুখি বৈষম্যের শিকার হয়ে তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিক হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে বলে অভিযোগ করেছেন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের নেতৃবৃন্দ। শনিবার বিকেলে রাঙামাটি শহরের একটি রেষ্টুরেন্টে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে নেতৃবৃন্দ এই অভিযোগ উত্থাপন করেন। উক্ত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি ও পিবিসিপি কেন্দ্রীয় কমিটির আহব্বায়ক অধ্যক্ষ মো: আবু তাহের। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের রাঙামাটি জেলা আহব্বায়ক মো: জামাল উদ্দীন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিবিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার লোকমান হোসেন, পিবিসিপি বান্দরবান জেলা আহবায়ক মো: মিজানুর রহমান, রাঙামাটি জেলা সাধারণ সম্পাদক মো:আব্দুল মান্নান। পিবিসিপি রাঙামাটি সরকারি কলেজ সভাপতি মো: ফয়েজ আহমেদ, সরকারি কলেজ সহ-সভাপতি মো:হাসানদদ তারেক, রাঙামাটি পৌর আহব্বায়ক ইউসুপ, পৌর সদস্য সচিব মো: জামিল, রাঙামাটি এটিআই সভাপতি আবু নাইম, রাঙামাটি টিটিসি আহব্বায়ক মো: আক্কাস, সদস্য সচিব রুবি আক্তার সহ বিভিন্ন পর্যায়ের প্রায় আড়াই শতাধিক নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

পিবিসিপি রাঙামাটি জেলা প্রচার সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মোমিনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে বর্তমানে বাঙালিরা তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিকের মত জীবন যাপন করছে। শিক্ষা, চিকিৎসা বাসস্থানেরর কথা চিন্তা করলে পাহাড়ের মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে। একই এলাকার মানুষ হয়েও বাঙালি ছাত্ররা পিছিয়ে থাকলেও উপজাতীয় ছাত্ররা বিভিন্ন কোটার মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছে। তিনি প্রত্যেক সেক্টরে বাঙালিদের সম অধিকার নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।

সভাপতির বক্তব্যে পিবিসিপি রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, পাহাড়ে নব নির্বাচিত বাঙালি জনপ্রতিনিধিদের নিরাপত্তা জোরদার করা পাহাড়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। পাহাড়ে উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসীরা পরবর্তী নির্বাচনে জামানত হারানোর ভয়ে যে কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাই সরকারের কাছে দাবি হলো পাহাড়ের জনপ্রতিনিধিদের নিরাপত্তা জোরদার করা হোক। অনুষ্ঠানের শেষে সভাপতির বক্তব্যে জেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম উপস্থিত সকল সাংবাদিক, প্রশাসন, সুশিল সমাজসহ সর্বস্থরের নেতাকর্মীদেরকে ধন্যবাদ জানান।