বীমা দাবির ২৪ লক্ষ টাকা পাচ্ছে সাংবাদিক মোস্তফার পরিবার!

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

প্রয়াত সাংবাদিক মোস্তফা কামালের পরিবারকে মৃত্যু দাবির চেক ও ডকুমেন্ট হস্তান্তর করেছে বীমা কোম্পনী ম্যাট লাই এ্যালিকো। মোস্তফা কামালের জীবদ্দশায় ম্যাট লাইফ এলিকোতে করা তিনটি পৃথক বীমা পলিসির বিপরীতে মোট ২৪ লক্ষ ৬০ হাজার ১২০ টাকার ডকুমেন্ট ও চেক হস্তান্তর করা হয়।

গত মঙ্গলবার (১৪ মে) রাঙামাটি শিশু নিকেতনে একটি সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মোস্তফা কামালের স্ত্রী মিসেস জাহেদা কামালের হাতে এই চেক ডকুমেন্ট তুলে দেয় কোম্পানিটির কর্মকর্তারা। এসময় রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, প্রবীণ সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার আল হক, বীমা কোম্পনীটির চট্টগ্রাম আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক, মোস্তফা কামালের বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন এবং এ্যালিকোর রাঙামাটি শাখার ব্যবস্থাপক রীপন রায় উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত রাঙামাটি জেলার জনপ্রিয় সাংবাদিক মোস্তফা কামাল দুরারোগ্য ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর মৃত্যু বরণ করেন। তিনি সুস্থ্য থাকা অবস্থায় বীমা কোম্পনী ‘ম্যাট লাই এ্যালিকো’তে তার সন্তান তোরশার জন্য একটি শিক্ষা বীমা পলিসি এবং তার নিজের জন্য একটি সঞ্চয় বীমা পলিসি করেছিলেন। জানা গেছে অসুস্থ অবস্থায় নানা প্রতিকুলতার মাঝেও তিনি বীমার টাকা নিয়মিত পরিশোধ করে যান। তার মৃত্যুর পর ঐলিকোর স্থানীয় প্রতিনিধি রীপন রায় ঐকান্তিক প্রচেষ্টার সাথে দ্রুত সময়ের মধ্যে তার মৃত্যু দাবির যাবতীয় কাগজপত্র প্রস্তুত করে কোম্পানীর কাছে পাঠালে তা অনুমোদন হয়ে আসে এবং সকলের উপস্থিতিতে এই টাকা হস্তান্তর করা হয়।

বীমার শর্ত অনুযায়ী মোস্তফা কামালের মেয়ের শিক্ষার জন্য ওইদিন ২ লক্ষ তিন হাজার ৪০০ টাকার এককালীন চেক প্রদান করা হয়। এ ছাড়াও এই পলিসি থেকে মেয়ের চিকিৎসার জন্য তার বাবার মৃত্যু মাস ডিসেম্বর ১৮ থেকে প্রতি মাসে ৯ হাজার টাকা করে জাহেদা কামালের ব্যাক হিসেবে জমা হবে। এই প্রক্রিয়া ২০৩০ সাল পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। এদিকে এই পলিসি থেকে পরবর্তীতে আরো ৪২,৫০০ এবং ৩,২০,৬২০ টাকার দু’টি মেয়াদি বোনাস প্রদান করা হবে। অন্য আর একটি পলিসি থেকে ডিসেম্বর ২০১৮ থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত প্রতি মাসে ৪০০০ টাকা করে মোট ১,১৬,০০০ টাকা এবং মেয়াদ শেষে এককালীন ৪, ৮১,৬০০ টাকা পাওয়া যাবে বলে বীমা সূত্র জানিয়েছে।