হ্যাক হচ্ছে একের পর এক ফেসবুক আইডি!

॥ মাসুদ পারভেজ নির্জন ॥

বেশ কিছুদিন ধরেই রাঙ্গামাটিতে একের পর হ্যাক হচ্ছে ফেসবুক আইডি। কে বা কাহারা এই কাজ করছে জানেনা কেউ। হ্যাক করা আইডি দিয়ে কি করা হচ্ছে তা নিয়ে চিন্তিত ফেসবুকের প্রকৃত মালিকরা। ফেসবুক আইডি দিয়ে অশ্লীল পোস্ট দিয়ে সমাজে সম্মানহানী করাই হয়তো মূল লক্ষ্য বলে ধারনা করছেন অনেকে।

১৯ মে হ্যাক হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল রাঙ্গামাটি জেলার সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর (সুমন) নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর এবং Abul Kalam Azad নামের এক ব্যাক্তি ২২ মে ফেইসবুকে পোস্ট দেয় “গত রাতে আমার এই আইডি হ্যাক হয়েছে। যেকোন অপ্রাসঙ্গিক পোস্ট বা মেসেজ এড়িয়ে চলার অনুরোধ রইল। আইডিটি রিকভারির চেষ্টা চলছে”। এছাড়াও আরো বেশ কয়েকজনের আইডি হ্যাক করা হয়েছে। কেমনে করছে তারা এই ফেসবুক আইডি।

শুধু কি ফেসবুক ব্যবহারকারীর নাম জানলেই ফেসবুক আইডি হ্যাক করা সম্ভব?এমন প্রশ্ন অনেকের কাছেই। এটি মোটেও সত্যি নয়,যে কেউ চাইলেই আপনার ফেসবুক আইডির নাম জেনেই কখনো হ্যাক করতে পারবেনা।সত্যি কথা বলতে এমন নিরাপত্তাহীনতা তৈরি করছে আসলে আমাদের নিজেদেরই অসতর্কতাই । প্রচলিত কিছু ফেসবুক হ্যাকিংয়ের মধ্যে জনপ্রিয় হলো ফিশিং।ফিশিংকে মাছ ধরার সাথেও তুলনা করা হয় ।বরশিতে টোপ দিয়ে যেমন উত পেতে থাকা হয় ঠিক তেমনেই। হ্যাকাররা ফেসবুকের মতনেই পেজ তৈরি করে লিংকের মাধ্যমে পাঠিয়ে থাকে আপনার ফেসবুক মেসেঞ্জারে।

কিসের লিংক, কেন দিল, না জেনেই ক্লিক করেই সর্বনাশের লেজে পা দিলেন নিজের অজান্তেই ! ফেসবুকে নানা সময়ে নানা অ্যাপস বের হয়, যেগুলো আসলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ দ্বারা সমর্থিত নয়। বিভিন্ন স্প্যামার গ্রুপের সদস্যরা এই ধরনের কাজ করে সাধারণ ফেসবুক ব্যাবহারকারীদের বিড়ম্বনায় ফেলার মাধ্যমে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করে। সে কারণে অযাচিত ফেসবুক অ্যাপস ইন্সটল করলে শুধু ফেসবুক আইডিই নয় লুটে নিতে পারে আপনার সব ব্যাক্তিগত তথ্য। তাছাড়া এই সব হ্যাকিং পদ্ধতি ছাড়াও মেন ইন দ্যা মিডেল এটেক,ফেসবুক স্নিফিং,স্পাই,সোসিয়াল ইঞ্জিয়ারিং,কি লগার উল্লেখযোগ্য।

ফেসবুক হ্যাক থেকে রক্ষার কিছু উপায়ঃ

১) সিকিউর ব্রাউজিং এনাবেল করুন- সিকিউর ব্রাউজিং বলতে মূলতএকটি সুরক্ষিত ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে ফেসবুক ব্রাউজ করাকে বুঝানো হয়েছে। নিরাপদ কানেকশন এর মাধ্যমে একটি সফল হ্যাকিং আক্রমণ থেকে 90% ঝুকিমুক্ত থাকা সম্ভব।

২)লগিন এপ্রুবাল অন করুন এতে পাসওয়ার্ড জানতে পারলেও লগিন করতে পারবে না কারন লগিন করার সাথে সাথে আপনার মোবাইলে কনফার্মেশন কোড পাঠাবে যতক্ষন না কোড সাবমিট করেছেন লগিন হবে না আপনি নিরাপদ দ্রুত আপনার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন।

৩) টেক্সট নাটিফিকেশন এক্টিভকরুন- ফেসবুক সকল ব্যবহারকারীদের বিনামূল্যে টেক্সট মেসেজ নাটিফিকেশন সুবিধা প্রদান করছে। যখন কোনো কম্পিউটার অথবা মোবাইল থেকে আপনার একাউন্টে ঢোকা হবে তখন টেক্সট মেজেস নাটিফিকেশন আপনার কাছে পৌছে যাবে। এরপর আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন আপনি নিজে অথবা হ্যাকার আপনার একাউন্টে লগইন করেছে কিনা। তখন আপনি দ্রুত আপনার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করিতে পারবেন।

৪) সর্বদা একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করুন- শক্তিশালী পাসওয়ার্ড হ্যাকার থেকে ফেসবুক একাউন্ট সংরক্ষণ করার সেরা উপায়। যদি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই সর্বনিম্ন ৩টি ক্যাপিটাল লেটার, ৩টি স্মলার লেটার, ৩টি নাম্বারির সংখ্যা ব্যবহার করতে হবে (উদাহরণস্বরুপ N!rj0_N@–%)। এই ধরনের শক্তিশালী পাসওয়ার্ড আপনার ফেসবুক একাউন্টের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে।

৫) থার্ড পার্টি এপ্লিকেশন ব্যবহার করার সময় সতর্ক থাকুন- ফেসবুকে আরো মজা এবং আরো আরামদায়ক করার জন্য তৃতীয় পক্ষের এপস এর অভাব নেই। কিন্তু এখন হ্যাকাররা এগুলো কে ব্যবহার করে তাদের হ্যাকিং কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা কোন নির্দিষ্ট সময়ে এগুলো ব্যবহার করে থাকি কিন্ত ব্যবহার শেষে সেগুলো কে remove/disable করতে ভূলে যাই। এর ফলে আমাদের ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক হতে পারে। সুতরাং আপনার এপস্ সেটিং পৃষ্ঠায় যান, তারপর যেসব এপস্ আপনি ব্যবহার করছেন না সেগুলো কে disable করে দিন।

৬) আপনার সিক্যুরিটি কোয়েশ্চন সেট করা থাকলে ভালো না থাকলে আরো ভালো । তাই সিকুরিটি কোয়েশ্চেন সিলেক্ট করার আগে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে কারন আমরা প্রায় সব সময় সহজ আনসার দিয়ে রাখি তাই সিক্যুরিটি আনসার দেবার সময় অবশ্যই সহজ কোনো কিছু না দিয়ে কঠিন কিছু দিন । কারন আমি দেখেছি প্রায় বেশির ভাগ এফবি ব্যাবহার কারি কোন টাউনে জন্ম গ্রহন করেছেন বা দাদি নানি পেশায় কি ছিলেন তা দিয়ে রেখেছেন যে গুলার উত্তর অনেকেই আইডিয়া করে সাবমিট করে আপনার এক্যাউন্ট টি হ্যাক করে নিতে পারে তাই সিক্যুরিটি আনসার দেবার সময় ভেবে চিনতে দিয়েন । যাতে সহজে কেউ বের করতে না পারে । না দিলে ভালো এই জন্য বললাম কারন সিক্যুরিটি কোয়েশ্চেন না থাকলে এই প্রসেসে কেউ আইডি নিতে পারবে না ।

৭) বর্তমানে ফেসবুক (Trusted Friends Password Recovery) ট্রাস্টেড ফ্রেন্ড চালু করেছে যেটা অবশ্যই ভালো কিন্তু এইটা দিয়েও আপনার আইডি হ্যাক করে নিতে পারে । কারন আপনার ট্রাস্টেড ফ্রেন্ড সিলেক্ট করা না থাকলে যে কেঊ আপনার আইডি তে ওর ৩ টা ফেইক আইডি দিয়ে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠিয়ে বন্ধু হবে এবং পরে সামান্য চেষ্টা করেই ওই ৩ টা আইডি তে কোড পাঠাতে পারবে এবং আপনার আইডি হ্যাক করে নিবে । তাই যাদের ট্রাস্টেড ফ্রেন্ড সিলেক্ট করা নয় আজি সিলেক্ট করেন এবং আপনার আইডি সুরক্ষিত করুন।