ব্রেকিং নিউজ

২২জুন রাঙামাটির ৮০ হাজার শিশুকে ভিটামিন “এ” খাওয়াবে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ

॥ আলমগীর মানিক ॥

আগামী ২২শে জুন রাঙামাটি জেলায় প্রায় ৬ থেকে ১১ মাস এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী প্রায় ৮০ হাজার শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছে রাঙামাটির স্বাস্থ্য বিভাগ। বুধবার রাঙামাটিস্থ সিভিল সার্জন অফিসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে রাঙামাটির ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নীহার রঞ্জন নন্দীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটির প্রবীণ সাংবাদিক দৈনিক গিরিদর্পণের সম্পাদক একেএম মকছুদ আহমেদ, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার আল হক, রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা ও মেডিকেল অফিসার ডা. মাসুদুর রহমান প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলন জানানো হয়, আগামী ২২জুন সারাদেশে একযোগে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে। এই রাউন্ডে রাঙামাটি জেলায় মোট লক্ষ্যমাত্রা ৭৯ হাজার ৮৮৪ জন শিশু। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুর লক্ষ্যমাত্রা ৯ হাজার ১৮৮জন এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুর লক্ষ্যমাত্রা ৭০ হাজার ৬৯৬ জন। এসময় পুরো জেলায় মোট ১৩১৫টি কেন্দ্র খোলা থাকবে। স্বেচ্ছাসেবী কর্মী থাকবে ২ হাজার ২০১জন। মাঠকর্মী থাকবে ৪২৯ জন এবং ২৪১ জন প্রথম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের একটি নীল রঙের এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদেরকে একটি করে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে বলে জানিয়েছের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ নীহার রঞ্জন নন্দী।

প্রাপ্ত তথ্যানুসারে রাঙামাটি সদর উপজেলায় ৬ টি ইউনিয়নের ১৮ টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৪৫৯৮১ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৬০৮ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৩৫৪৫ টি শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন এর আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছেন রাঙামাটি স্বাস্থ্য বিভাগ।

স্বাস্থ্যবিভাগ জানিয়েছে, অতিরিক্ত ১টি সহ সর্বমোট ১৪৫ টি কেন্দ্রে ২৫৪ জন স্বেচ্ছাসেবী,৩৬ জন মাঠকর্মী এবং ২৬জন ১ম সারির তদারককারীর তত্ত্বাবধানে এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে। তারই ধারাবাহিকতায় কাউখালী উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ১২টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৬৮২৩৯ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৯৫৪ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৬৭০৬টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ৯৭টি কেন্দ্রে ১৪৮ জন স্বেচ্ছাসেবী,৪৬ জন মাঠকর্মী ও ২৯ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

নানিয়ারচর উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নের ১২টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৫২১০১ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৬৪৬ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৪৩৯০ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ৯৭টি কেন্দ্রে ১৬৫ জন স্বেচ্ছাসেবী,২৯ জন মাঠকর্মী ও ১৭ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

কাপ্তাই উপজেলার ৫ টি ইউনিয়নের ১৫টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৬৬৫৪২ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ১০৮০ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৬৬০৩ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ১২১টি কেন্দ্রে ১৯০ জন স্বেচ্ছাসেবী,৫২ জন মাঠকর্মী ও ২৪ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

বিলাইছড়ি উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ১২টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৩১৭৩৯ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৪০৩ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৩১২৮ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ৯৭টি কেন্দ্রে ১৬২ জন স্বেচ্ছাসেবী,৩২ জন মাঠকর্মী ও ১৯ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

রাজস্থলী উপজেলার ৩টি ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৩১৩৫৪ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৫২৪ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৩৬৯৬ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি’সহ ৭৩টি কেন্দ্রে ১২৭ জন স্বেচ্ছাসেবী, ১৯ জন মাঠকর্মী ও ১৩ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবে।
বাঘাইছড়ি উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের ২৪ টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৬৮২৩৯ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ১২১৩ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ১০০৪৩ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ১৯৩টি কেন্দ্রে ৩৩০ জন স্বেচ্ছাসেবী,৫৬ জন মাঠকর্মী ও ৩১ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবে।

বরকল উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের ১২টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৫৪৭৬৭ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ৮২২ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৮০১২টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি’সহ ১২১টি কেন্দ্রে ২১২ জন স্বেচ্ছাসেবী,৩০ জন মাঠকর্মী ও ২০ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

জুরাছড়ি উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নের ১২টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৩০৩৫৩ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ২৯৭ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ২৩৭২ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ৯৭টি কেন্দ্রে ১৫৬ জন স্বেচ্ছাসেবী,৩৮ জন মাঠকর্মী ও ২২ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

লংগদু উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নের ২১টি ওয়ার্ডে মোট জনসংখ্যা ৯৮৫৫০ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ১৬০১ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ১২৮৪৪ টি শিশু এবং অতিরিক্ত ১টি সহ ১৬৯টি কেন্দ্রে ২৯২ জন স্বেচ্ছাসেবী,৪৬ জন মাঠকর্মী ও ২৮ জন ১ম সারীর তদারককারী নিয়োজিত থাকবেন।

এদিকে রাঙামাটি শহরে পৌরসভার ৯ ওয়ার্ডে সর্বমোট জনসংখ্যা ৮৬২৭৮ তার মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী ১০৪০ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৯৩৫৭টি শিশু এবং অতিরিক্ত ৩টি সহ ১০৫টি কেন্দ্রে ১৬৫ জন স্বেচ্ছাসেবী, ৪৫জন মাঠকর্মী ও ১২জন ১ম সারীর তদারককারীরে ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে নিয়োজিত রাখা হবে।