কাপ্তাই হ্রদে নিখোঁজ গুলিবিদ্ধ জেএসএস সংস্কার কর্মীর লাশ উদ্ধার!

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পাহাড়ের আঞ্চলিক দুই সংগঠনের মধ্যে গোলাগুলিতে গুলিবিদ্ধ জেএসএস এমএন লামরা গ্রপের নেতা  কোকো চাকমার (২৬) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে শুক্রবার সন্ধ্যায়। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার সময় রাঙামাটির সুবলং ইউনিয়নের কাচালং দোর এলাকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস ও তাদের অন্যতম প্রধান শত্রু সংস্কারপন্থী জেএসএস এর মধ্যে এই গোলাগুলির সময় কোকো গুলিবিদ্ধ হয়ে পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয়।

জানা যায়, সংস্কারপন্থী জেএসএস এমএন লারমা গ্রপের নেতা কোকো চাকমা নিজে সুবলংয়ে সহকারী সংগঠকের দায়িত্বে ছিলেন এবং তিনি জেএসএস এমএন লারমা গ্রপের প্রধান নেতা পেলে বাবুর আপন ভাতিজা বলে জানিয়েছে দলটির দায়িত্বশীল সূত্র। তার বাড়ি খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলাধীন কামুক্যাছড়া এলাকায়। কোকো চাকমা সুবলং এলাকায় জেএসএস এমএন লারমা দলের সহকারি সংগঠক বলে জানিয়েছে দলটির একাধিক সূত্র। বরকল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মফজল আহমেদ খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার সকালে রাঙামাটি থেকে ইট বোঝাই ২টি ট্রলার বোট নিয়ে লংগদুর উদ্দেশ্য সুবলং বাজার ক্রস করে যাচ্ছিল। এ সময় চাঁদার জন্য সুবলং বাজারের মাজারের ঘাটে ভিড়ানোর লক্ষ্যে বোটগুলিকে সিগন্যাল দেয় জেএসএস এমএন লারমার সংস্কারপন্থীর কর্মীরা। কিন্তু মাল বোঝাই বোটগুলো ঘাটে না ভিড়িয়ে চলে যাচ্ছিলো।

এসময় জেএসএস সংস্কারপন্থীরা তাদের কাছে থাকা ষ্পীড বোট নিয়ে ওই মালামাল বোঝাই দুটি বোট কে ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে ওই দু’টি ট্রলার বোটকে লক্ষ্য করে গুলি করে সংস্কারপন্থীরা।

এসময় গুলি করতে করতে নিজেদের নিয়ন্ত্রিত এলাকার সীমানা ত্যাগ করে প্রতিপক্ষের সীমানায় চলে এলে আমবাগান নামক এলাকায় ওৎপেতে থাকা জেএসএস এর মুল দলের সশস্ত্রকর্মীরা সংস্কারপন্থীদের দেখেই ব্যাপকহারে গুলি চালাতে থাকে।

এসময় সংস্থারপন্থীরাও পাল্টা গুলি ছুড়ে। এতে এমএন লারমার সংস্কারপন্থীদের ষ্পীড বোটের ড্রাইভার কোকো চাকমা (২৮) গুলিবিদ্ধ হয়ে পানিতে পড়ে যায়। স্থানীয়রা জানিয়েছে এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে ৫০ রাউন্ডের অধিক গুলি বিনিময় হয়েছে।