ব্রেকিং নিউজ

বান্দরবানে পাহাড় ধসে নারীর মৃত্যু, আহত-২

প্রতীকী ছবি

॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

অবিরাম বর্ষণে বান্দরবানের লামায় পাহাড় ধসে নূর জাহান (৬০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এসময় নিহতের পুত্র এবং পুত্রবধূ আরও ২ জন আহত হয়েছে। রোববার দুপুরে দুইটায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা সুত্রে জানা যায়, প্রবল বর্ষণে জেলার লামা উপজেলার ১নং মধুঝিড়ি এলাকায় বসতবাড়িতে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। এসময় পাহাড় ধসে নূর জাহান (৬০) এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। সে স্থানীয় বাসিন্দার নূর হোসেনের স্ত্রী।
এ ঘটনায় নিহতের পুত্র মোহাম্মদ ইরান এবং পুত্রবধূ ফাতেমা বেগম নামে আরও ২ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে। আহতদের লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আপেলা রাজু নাহা জানান, ঝুকিপূর্ন বসতি থেকে পাহাড় ধসে হতাহতদের আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে আনা হয়েছিল, কিন্তু রোববার সকালে তারা আশ্রয় কেন্দ্র ছেড়ে পালিয়ে বসত বাড়িতে ফিরে গেলে পাহাড় ধসে একজনের প্রাণহানীর ঘটনা ঘটে।

লামার উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি লামা উপজেলার সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড পশ্চিম মধুঝিরি এলাকায় পাহাড় ধসে নিহত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ বিতরণ করা হয়েছে।
এদিকে, এখনো বন্ধ রয়েছে বান্দরবানের সাথে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বান্দরবান-চট্রগ্রাম সড়কের সাতকানিয়া বাজালিয়া এলাকা প্রধান সড়ক আবারও পানিতে তলিয়ে যায়। এতে বান্দরবানের সাথে সারাদেশের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন পড়ে। সড়কে যানবাহন আটকা পড়ে চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা।

এদিকে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নোমান হোসেন জানান, এ পর্যন্ত জেলায় মোট ১৩১টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে এবং বন্যা দুর্গতদের মাঝে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে এবং সরকারী ভাবে মেডিক্যাল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও পৌর সভা শুকনা খাবার ও খিচুড়ি বিতরণ করা হচ্ছে। জেলা জনস্বাস্থ্য বিভাগ বন্যার্তদের বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট নিরসনে পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরন করেন।