বান্দরবানে আবারো আওয়ামীলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা!

॥ নুরুল কবির – বান্দরবান ॥

বান্দরবানে রোয়াংছড়িতে তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মংমংথোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মংমংথোয়াই-এর বাড়ি তারাছা ইউনিয়নে তালুকদার পাড়ায় সে তারাছার মিক্যা জাই মারমার ছেলে ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলা জেলা আওয়ামীলীগের অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনকে সামনে রেখে রোয়াংছড়িতে উপজেলা পর্যায়ে একটি প্রস্তুতি সভা ছিল। সভা শেষ করে দুপুরে মোটর সাইকেলে করে বাড়ি ফেরার পথে ভাঙ্গামোড়া পাহাড়ে শামুকঝিড়ি এলাকায় তারাছা পাড়ার রাস্তার মোড়ে তাকে গুলি করে দুর্বৃত্তরা। নেতাকর্মীরা আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বান্দরবান সদর হাসপাতালের ডাক্তার চিংম্রাসা বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েগেছে।

জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর বলেন, পাহাড়ের শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করার লক্ষ্যে পাহাড়ের আঞ্চলিক দল জেএসএস সন্ত্রাসীরা একের পর এক গুম, খুন ও হত্যা করে যাচ্ছে। তারা এর আগেও আওয়ামীলীগ নেতাদের হত্যা করেছে। আমি আগেও বলেছি সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ালীগ নেতাদের হত্যার জন্য একটি তালিকা করেছে। এবং বেছে বেছে তারা একের পর এক আ’লীগ নেতা হত্যা করে যাচ্ছে। আমরা সবাই নিরাপত্তাহীনতায় আছি। যেকোন সময় আমাদের উপরও হামলা হতে পারে।

এ বিষয়ে বান্দরবান জেলার পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার বলেন সন্ত্রাসীরা আওয়ামীগের এক নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে তবে কে বা কারা হত্যাকান্ডটি ঘটিয়েছে সেটি এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না তবে পূর্ব শত্রুতার জেরে এটি হয়ে থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ মে কুহালং ইউনিয়নের আ’লীগের এক কর্মীকে গুলি হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। পরে ২২ মে বান্দরবান পৌর আ’লীগের সহ-সভাপতি সাবেক পৌর কমিশনার চথোয়াই মং মার্মাকেও গুলি করে হত্যা করা হয় এবং ২২জুলাই সোমবার রোয়াংছড়িতে তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মংমংথোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে । সে মামলায় জেএসএস এর শীর্ষ নেতা কেএসমং সহ ৭ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে তারা জেল হাজতে রয়েছে।