হুমকীর মুখে ফিসারী সংযোগ সড়কঃ পর্যটকবান্ধব পরিকল্পিত সংস্কার চায় শহরবাসী

॥ মাসুদ পারভেজ নির্জন ॥

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের আরেক নিদর্শন রাঙ্গামাটি ফিসারী সংযোগ সড়ক। যে জায়গাটি রাঙামাটির মানুষকে স্বস্তি দেয়, যে জায়গায় দাঁড়িয়ে কাপ্তাই হ্রদের দু’দিকে শান্ত নীল জলরেখা দেখতে পাওয়া যায়, যে স্থানটি হতে পারে রাঙামাটির অন্যতম আকর্ষণীয় পর্যটন স্থান সে জায়গাটিই আজ হুমকির মুখে।

যেখানে দাঁড়িয়ে থাকলে সবুজায়নের কারণে আকাশ দেখা যেতনা, যেখানে বৃষ্টির জলধারা বৃক্ষের কারনে বোঝাই দুঃসাধ্য হয়ে যেত এখন সেখানে স্পষ্ট আকাশ দৃশ্যমান। রাঙামাটি শহরের ফিসারী সংযোগ সড়কটির ফুটপাত দুইপাশে ক্ষয়ে যেতে যেতে এখন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসেছে। যে গাছগুলো বাঁধের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করেছে সেই গাছগুলো ধীরে ধীরে বিলীন হচ্ছে হ্রদে। এমনিতেই দুইদিকের পানিতে মাটি নরম হয়ে পড়েছে তার ওপর দিয়ে প্রতিনিয়ত ভারী যানবাহন চলায় প্রায় সময় ঘটছে দুর্ঘটনা।

সরেজমিনে দেখা যায়, সংযোগ সড়কটির দু’দিকে কাপ্তাই হ্রদের পানি ভরপুর হয়ে রাস্তার কাছাকাছি এসে পৌঁছেছে। কোনো কোনো স্থানে দুই-এক ফুট পানি উঠলেই রাস্তাটি ডুবে যেতো। রাস্তার পাশে মাটির ফুটপাতটি ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে রাস্তার কিনারায় এসে ঠেকেছে। যেকোনো সময় রাস্তাটির বেশ কিছু অংশ ভেঙ্গে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। কিছু কিছু গাছ নিমজ্জিত হয়েছে পানিতে। মাটি ক্ষয়ে ক্ষয়ে এখন শেকড়ের টানে কোনোরকমে গাছগুলো বেঁচে আছে। রাস্তাটি হাঁটার এখন মূল জায়গা পাকা রাস্তার ওপর। তাও আবার রাতে হাঁটা বেশ বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে। রাস্তার ওপর ল্যাম্প পোস্টগুলো প্রায় সময় নষ্ট থাকায় রাতের বেলা অন্ধকার বিরাজ করে সমস্ত রাস্তায়।

এদিকে পানি বৃদ্ধিতে নতুন বিড়ম্বনাও দেখা দিয়েছে। এখন অনেকে গাড়ি থেকে বোটে মাল তোলা নামানোর জন্য সড়কটির বেশ কিছু জায়গাকে ঘাট হিসেবে ব্যবহার করছে। অনেকে লঞ্চ, বোটের রশি সরাসরি গাছের সাথে বেঁধে রেখেছে। এতে বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে ওই রাস্তায় যাতায়াতকারী মানুষজনরা। বাঁধটি রক্ষার জন্য যেনতেনভাবে খুঁটি দিয়ে সংস্কার করা হলেও কোনো প্রকার আশানরূপ ফলাফল দৃশ্যমান নয়।

অন্যদিকে ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার এই ফিসারী সংযোগ সড়কটি রক্ষা এবং এটিকে ঘিরে পর্যটকবান্ধব পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের দাবিতে সকাল ১১ টায় ফিসারী সংযোগ সড়কে রাঙামাটির বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে রাঙ্গামাটির সর্বস্তরের জনতাকে নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।